logo
news image

বাগাতিপাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পে ঘর নির্মাণ কাজের উদ্বোধন




বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধি
 নাটোরের বাগাতিপাড়ায় মজিব বর্ষ উপলক্ষে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার ভূমিহীন ও গৃহহীন "ক' শ্রেণির পরিবার পুনর্বাসনে
গ্রা, অ, র (টি আর) কর্মসূচির আওতায় দ্বিতীয় পর্যায়ে দুর্যোগ সহনীয় গৃহনির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পে তেষট্টি বছর বয়সি ঝুরমান বেওয়া'র হস্তান্তরিত জমি'র উপর  গৃহনির্মাণ কাজের উদ্বোধন করা হয়। 

রবিবার  (২ মে) বেলা ১২ টায় উপজেলার জামনগর মন্ডলপাড়া মাঠে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর নির্মাণ  কাজের
উদ্বোধন করা হয়। সভা প্রধান অতিথি  সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল এ আশ্রয়ণ প্রকল্পের গৃহ নির্মাণ  কাজের শুভ 
উদ্বোধন করেন। 

ফেরিওয়ালা ঝুরমান বেওয়া উপজেলার জামনগর ইউনিয়নের কৈচরপাড়ার মৃত কছিম উদ্দিনের মেয়ে। এক ভাই ও তিন বোনের মধ্যে বড় ঝুরমান বেওয়া। স্বাধীনতা উত্তর তার বিয়ে হয়েছিল নাটোর সদরের লক্ষ্মীপুর গ্রামের হাতেম আলীর সঙ্গে। সুদর্শন হাতেম আলী নিজের চেহারাকে পুঁজি করে একাধিক বিয়ে করায় অল্প দিনের মধ্যেই ভেঙে যায় ঝুরমান বেওয়ার সংসার।

সাত মাস বয়সী একমাত্র ছেলেকে নিয়ে তাঁর আশ্রয় হয় দরিদ্র বাবার ঘরে।  বাবার মৃত্যুর পর দারিদ্র্যের কষাঘাতে 
এলাকায় বাড়ি বাড়ি ফেরি করে মাটির হাঁড়ি-পাতিল ও মাদুর বিক্রি করতেন তিনি।

অপরদিকে ছেলে বিয়ে করে মাকে ফেলে চলে যায় শ্বশুর বাড়িতে।  ঝুরমান বেওয়ার বয়সের ভারে বন্ধ হয়ে যায় বাড়ি বাড়ি ঘুরে ফেরি করা। শুরু হয় মানুষের বাড়িতে ঝিয়ের কাজ করা। ভাইয়ের জমিতে একটি ঝুপড়ি ঘরে তাঁর আশ্রয় হয়।

১৯৯১ সালে সরকার  ঝুরমান বেওয়াকে  জামনগর মৌজায় ৯৭ শতাংশ খাস জমি দলিলমুলে বন্দোবস্ত দেয়।
কিন্তু  প্রভাবশালীদের চাপে  বন্দোবস্ত  জমি ভোগ করতে পারেননি তিনি। শেষ বয়সে তাঁর এ জমির মধ্যে  ৮০ শতাংশ জমি প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পে দান করেন। 
ঝুরমান বেওয়া'র নামে তাঁর ভাইয়ের দেওয়া জমির উপর   সরকারি অর্থায়নে নির্মিত হয় দূ'কক্ষ বিশিষ্ট একটি ছোট্ট  টিনসেড ঘর। বর্তমান এটাই তাঁর আশ্রয়স্থল।

এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাগাতিপাড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) প্রিয়াঙ্কা দেবী পালের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অহিদুল ইসলাম গোকুল, সহকারি কমিশনার (ভুমি) নিশাত আনজুমান  এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন জামনগর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল কুদ্দুস। জামনগর ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা বদরুজ্জামান,  বাঁশবাড়িয়া ভূমিহীন সমিতির সাধারন সম্পাদক আব্দুল মোত্তাল ও জমিদানকারি ঝুরমান বেওয়া প্রমূখ । উপস্থাপক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন পি আই ও অফিসের কর্মসহকারি
শাখাওয়াত হোসেন। এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন বাগাতিপাড়া উপজেলা প্রশাসন। 

প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পে তেষট্টি বছর বয়সি ঝুরমান বেওয়া'র হস্তান্তরিত জমি'র উপর  পৃথক পৃথক চল্লিশটি 
  দূ'কক্ষ  বিশিষ্ট  গৃহ নির্মাণ করা হবে। এখানে এলাকার চল্লিশটি দুঃস্থ পরিবার  বসবাসের সুযোগ পাবেন।

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top