logo
news image

বড়াইগ্রামে মহাসড়ক ধুলোয় জন দুর্ভোগের সৃষ্টি

নিজস্ব প্রতিবেদক, বড়াইগ্রাম নাটোর
নাটোর-পাবনা মহাসড়কের নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া পৌরশহরে সড়ক সংস্কারে ধীরগতি কারনে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন পথচারীসহ এলাকাবাসী। উদে¦াধনের দুই মাস পেরিয়ে গেলেও কাজ হয়েছে মাত্র ১৫ শতাংশ। ফলে সৃষ্টি হচ্ছে যানযট দুর্ভোগে জনজীবন।
স্থানীয় সুত্রে জানাযায়, প্রায় দুই মাস আগে বনপাড়া পৌর শহরে ২৫০ মিটার রাস্তা ৪ লেন করে আর সিসি ঢালাইয়ের কাজের উদ্বোধন করা হয়। ফলে সংস্কারের জন্য মহাসড়কের ডিভাইডারের পূর্বপার্শ্বে ৪ দশমিক ৭ মিটার প্রশস্থবিশিষ্ট ঢালাইয়ের কাজ শুরু হয়। তখন থেকে রাস্তার পশ্চিম পার্শ্বের ৪ দশমিক ৭ মিটার প্রশস্থ রাস্তা দিয়ে উভয়মুখী যানবাহন ও পথচারী চলাচল শুরু হয়। যার ফলে প্রায় তীব্র যানযটের সৃষ্টি হচ্ছে।
যান চলাচলের সময় প্রচন্ড ধুলায় পরিবেশ ব্যাপকভাবে দূষিত হচ্ছে। রাস্তার উভয় পার্শ্বে স্থাপিত হোটেল রেস্তোরা ও ফলের দোকানগুলিতে রাশি রাশি ধুলা পড়ায় ক্রেতা স্বল্পতায় ভুগছে দোকানিরা। দেখা দিচ্ছে শাষ কষ্টসহ এলার্জী জাতীয় রোগ।
বনপাড়া হোটেলের স্বত্ত¡াধিকারী আব্দুর রহিম বলেন, সাম্প্রতিক রাস্তা থেকে আসা ধুলাবালির কারণে হোটেল ব্যবসায় খুব মন্দাভাব দেখা দিয়েছে।
প্রধান শিক্ষক এস এম আনোয়ার হোসেন বলেন, বর্ষার আগেই কাজ শেষ করা না গেলে জনদুর্ভোগ চরম আকার ধারণ করবে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী কাজের মান বজায় রেখে দ্রæত কাজটি সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছে।
উপজেলা চেয়ারম্যান ডা. সিদ্দিকুর রহমান পাটোয়ারী বলেন, পৌরশহরে প্রতিনিয়ত ধুলাবালির কারণে লোকজন হাঁচি, কাশি, শ্বাসকষ্টসহ নানাবিধ পেটের পীড়ায় ভুগছে।
বনপাড়া পৌরসভার মেয়র কে এম জাকির হোসেন বলেন, জেলার সমন্বয় সভার মিটিংএ ও মোবাইল ফোনে একাধিকবার কাজটির মান বজায় রেখে দ্রæত সম্পন্ন করার জন্য কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছি।
এ ব্যাপারে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সরকার কন্সট্রাকশনের স্বত্ত¡াধিকারী সুজিত সরকারের সাথে একাধিকবার মুঠোফোনে যোগাযোগ করে পাওয়া যায়নি। তার প্রতিনিধি ইমদাদুল হক জানান, কাছিকাটা থেকে তৈরী করা মশলা এনে কাজ করতে হচ্ছে, তাছাড়া সময়মত প্রয়োজনীয় রড সিমেন্টও পাওয়া যাচ্ছে না তাই কাজের ধীরগতি।
সওজ প্রতিনিধি সুজীবন কুমার ঘোষ জানান, আগামী জুন নাগাদ কাজ শেষ হয়ে যাবে আশা করছি।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমি কয়েকবার সওজ কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলেছি কাজটি দ্রæত সময়ে শেষ করার জন্য।

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top