logo
news image

ঈশ্বরদী ও আঘোরিয়ায় ব্যারিষ্টার জিরুর সবুজায়নের কর্মসূচি অব্যাহত

ঈশ্বরদী (পাবনা) প্রতিনিধি :
ব্যক্তি উদ্যোগে ঈশ্বরদী ও আটঘোরিয়ায় ব্যারিষ্টার সৈয়দ আলী জিরুর সবুজায়নের কর্মসূচি অব্যাহতভাবে চলছে। একঝাঁক শিক্ষিত তরুণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ‘গাছ লাগান, পরিবেশ বাঁচান’ শ্লোগাণকে বুকে ধারণ করে ব্যারিষ্টার জিরুর গাছ লাগানোর কাজে ব্যাপৃত রয়েছেন। এরই ধারাবাহিকতায় আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার পৌর এলাকার রেজওয়ান নগর গোরস্তান এলাকায় জিরুর অনুসারীরা বৃক্ষ রোপণ করেছেন। মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে গত ২৪ জুন হতে লাগাতার ব্যরিষ্টার জিরুর উদ্যোগে এপর্যন্ত প্রায় তিন হাজার গাছ লাগানো হয়েছে বলে জানা গেছে।
পাবনা জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র নেতা ব্যারিষ্টার জিরুর সাথে গাছ লাগানোর যুদ্ধে সামিল হয়েছেন ঈশ্বরদী ও আটঘোরিয়ার পাঁচ শতাধিক তরুণ। এদের কেউ ছাত্র, আবার লেখাপড়া শেষ করে চাকুরি প্রত্যাশি। উচ্চ শিক্ষিত বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ফেরত প্রকৌশলী, কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার এবং কৃষিবিদ রয়েছেন। করোনাকালীন সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়সহ অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় তরুণ ছাত্ররা এলাকার পরিবেশের ভারসাম্য রায় জিরুর এই উদ্যোগকে স্বাগত গাছ লাগিয়ে চলেছেন। জিরুর উদ্যোগকে এলাকার নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিসহ সকল শ্রেণী ও পেশার মানুষ স্বতস্ফূর্তভাবে স্বাগত জানিয়েছেন।
পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সুব্রত বিশ্বাস বলেন, সবুজ বাংলার স্বপ্ন থেকেই ব্যারিস্টার জিরুর সবুজায়নের উদ্যোগ এলাকার পরিবেশ রক্ষায় সহায়ক হবে।
ঈশ্বরদী মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ ইসমাইল হোসেন জানান, ব্যারিষ্টার জিরুর নেতৃত্বে তরুণ প্রজন্ম বিপথগামী না হয়ে দেশ গড়ার কাজে নিয়োজিত হয়েছে।
খেলাঘরের ঈশ্বরদী উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক জাকিউল মাওলা সুমন জানান, খেলাঘরের শিশু-কিশোররা ব্যারিষ্টার জিরুর পরিবেশের ভারসাম্য রার কাজে সহযোগিতা করছে। এছাড়াও করোনা পরিস্থিতিতে এলাকার অসহায় ও নিম্নআয়ের মানুষের মাঝে খাদ্যদ্রব্য বিতরণ কার্যক্রম  মানুষের অভাব পূরণে সহায়তা  করেছে।
ব্যারিস্টার জিরু বলেন,বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণায় উদ্বুদ্ধ হয়ে সবুজায়নের কাজ শুরু করেছি এবং এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা ও আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মকে জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব হতে মুক্ত রাখার জন্য আমার এই কাজে এলাকার সচেতন ও শিক্ষিত পাঁচ শতাধিক তরুণ শামিল হয়েছে। এসব কর্মকান্ডের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন বাস্তবায়নে তরুণ সমাজ উজ্জিবিত হচ্ছে বলে মনে করি।
ঈশ্বরদী ও আটঘরিয়ার প্রতিটি স্কুল, কলেজ, মসজিদ, মাদ্রাসা, গোরস্তান, শ্মশান, রাস্তার পাশে প্রতিদিনই গাছ লাগানো হচ্ছে। তরুণরা গাছ লাগিয়েই ক্ষ্যন্ত দিচ্ছেন না, গাছের পর্যবেক্ষণ এবং রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বও তারা নিয়েছেন। এরই মাঝে প্রায় তিন হাজারের বেশী গাছ লাগানো  হয়েছে বলে জানিয়েছেন ছাত্রলীগ নেতা মোস্তাফিজুর রহমান তুফান।

সাম্প্রতিক মন্তব্য