logo
news image

ঈশ্বরদীর চরকুরুলিয়ায় ছুরিকাঘাতে ১ জন আহত আসামীপক্ষ মিথ্যা মামলা দায়েরের অপচেষ্টায় লিপ্ত

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ
ঈশ্বরদী লক্ষীকুন্ডার চরকুরুলিয়ায় ছুরিকাঘাতে একদুধ ব্যবসায়ী গুরুতর আহত হওযার ঘটনাকে কেন্দ্র করে আসামীপক্ষ থানায় মিথ্যা মামলা দাযেরের অপচেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ছুরিকাঘাতের ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের ঘটনাকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্যই এই অপচেষ্টা বলে আহতের ভাই ও মামলার বাদী সাইফুল ইসলাম জানিয়েছেন।
ঈশ্বরদী থানায় গত ২৬শে জুন দায়েরকৃত মামলার বিবরণে জানা যায়, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পরিকল্পিতভাবে গত ২৪শে জুন দুপুরে দুধ বিক্রি করে সাইকেলে বাড়ি ফেরার পথে শফিকুল ইসলাম (৪০) কে চাকু দিয়ে ছুরিকাঘাত করলে সে গুরুতর আহত হয়। আহত অবস্থায় প্রথমে তাকে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। রাজশাহীতেও উন্নতি না হলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। শফিকুল বর্তমানে ঢাকাতে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানা গেছে। শফিকুল চরকুরুলিয়া গ্রামের জনৈক আবুল কাশেমের ছেলে বলে জানা গেছে। এঘটনায় শফিকুলের ভাই সাইফুল ইসলাম বাদী হয়ে হামলাকারী চরকুরলিয়ার ভাটপাড়া  গ্রামের নাযেব আলী প্রাং এর পুত্র রুবেল (২৭) ও তার মা সাজেদা খাতুন (৫৫) কে নামীয় আসামী করে ঈশ্বরদী থানায় মামলা দায়ের করেছে। মামলা নং ৩১।
সোমবার সরেজমিনে চরকুরুলিয়ায় যেয়ে ঘটনা প্রসংগে প্রত্যক্ষকারীদের সাথে কথা বলে হামলার ঘটনার সত্যতা পাওয়া গেছে। এলাকাবাসীরা জানান, ঘটনার পর শফিকুলের মৃত্যু হয়েছে মনে করে হামলাকারীরা বাড়ি-ঘর ফেলে পালিয়ে যায়। এই অবস্থায় এলাকার সাকাত মেম্বার হামলাকারীদের বাড়ির মালামাল যাতে খোয়া না যায়, এজন্য ঘরের জিনিসপত্র নিজের হেফাজতে নিয়ে রাখেন। কিন্তু আসামীরা তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা হতে পরিত্রাণ লাভের জন্য বাড়িতে লুটতারাজ করা হয়েছে বলে থানায় মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছে বলে জানা গেছে। মিথ্যা অভিযোগ দায়েরের ঘটনায় এলাকাবাসীর মধ্যে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হযেছে।

সাম্প্রতিক মন্তব্য