logo
news image

ঈশ্বরদীতে করোনার নমুনা আবারো সংগ্রহ বন্ধ

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ
ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে করোনার নমুনা সংগ্রহ আবারো বন্ধ হয়ে গেছে। করোনা টেষ্টের কীট না থাকার কারণে গত সপ্তাহে সংগৃহীত ছয় শতাধিক নমুনা টেষ্টের জন্য এখনও রাজশাহী বা ঢাকাতে পাঠানো সম্ভব হয়নি। নমুনা সংগ্রহের জন্য সরকারি এ্যাম্পুল ও স্টিক এখনও আসেনি। রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের বিভিন্ন কোম্পানী কর্তৃক সরবরাহকৃত এ্যাম্পুল ও স্টিক দিয়েই নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছিল। ঈশ্বরদীতে করোনার নমুনা পরীক্ষা সংক্রান্ত এসব সমস্যার কথা জানিযেছেন ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ আসমা খান।
ডাঃ আসমা খান জানান, রাজশাহী ও ঢাকা ল্যাবে করোনা পরীক্ষার কীটের সংকট সৃষ্টি হযেছে। এই কারণে গত ২৫শে জুন বৃহস্পতিবার পর্যন্ত এক সপ্তাহে ছয় শতাধিক সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো সম্ভব হয়নি। ঈশ্বরদী হাসপাতালে বরাদ্দকৃত সরকারি এ্যাম্পুল ও স্টিক গত ১১ই জুন শেষ হলেও এখন পর্যন্ত বরাদ্দ পাওয়া যায়নি। এসময় নমুনা সংগ্রহ ৬ দিন বন্ধ থাকার পর ১৭ই জুন হতে বিশেষ ব্যবস্থায় নমুনা সংগ্রহ শুরু হয়। এই অবস্থায় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের শ্রমিক কর্মচারীদের নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রকল্পের বিভিন্ন কোম্পানী কর্তৃক সরবরাহকৃত এ্যাম্পুল ও স্টিক দিয়েই এতাদিন নমুনা সংগ্রহ করা হচ্ছিল। তাদের সরবরাহকৃত কিছু অতিরিক্তি এ্যাম্পুল ও স্টিক দিয়ে স্থানীয়সহ বেশী উপসর্গদের অল্প-বিস্তর নমুনা সংগ্রহের কাজ চলছিল।  কিন্তু সংগৃহীত নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠাতে না পারার কারণে নতুন করে আর কোন নমুনা সংগ্রহ করা সম্ভব নয় বলে তিনি জানিযেছেন।
উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার হিসেবে স্বীকৃত ঈশ্বরদী একটি প্রথম শ্রেনীর উপজেলা। এখানকার জনসংখ্যা প্রায় সাড়ে ৩ লাখ জনগোষ্টি অধ্যুষিত প্রথম শ্রেণীভূক্ত ঈশ্বরদী পৌরসভা ছাড়াও এই উপজেলায় রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্র্রকল্প, আইইপিজেড, পশ্চিম রেলের পাকশী বিভাগীয় সদর দপ্তর এবং ভারী-মাঝারিও ক্ষুদ্র শিল্প প্রতিষ্ঠান রয়েছে। বিদেশী নাগরিকসহ বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে বহিরাগত শ্রমিক কর্মচারী ও কর্মকর্তা মিলিয়ে প্রায় ৪০ হাজার মানুষ ঈশ্বরদীতে কর্মরত রয়েছে। সরকারিভাবে প্রাপ্ত এ্যাম্পুল ও স্টিক দিয়ে মাত্র ৭৩৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়।
হাসপাতাল সূত্র আরো জানায়, ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হতে এযাবত প্রায় ১,৮০০ জনের নমুনা সংগ্রহ হয়েছে। এরমধ্যে ১,১৭৫ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। প্রাপ্ত রিপোর্টে ২৪ জনের করোনা পজিটিভ ধরা পড়েছে। আরো ছয় শতাধিক নমুনা সংগ্রহে রয়েছে। যা এখনও পাঠানো সম্ভব হয়নি।

সাম্প্রতিক মন্তব্য