logo
news image

ভেল্লাবাড়ীয়া মাজারে ধাক্কাধাক্কি: আটক ৪

নিজস্ব প্রতিবেদক।।
নাটোরের লালপুর উপজেলার ভেল্লাবাড়ীয়া মাজারে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বর্তমান ও প্রস্তাবিত কমিটির দু’পক্ষের মধ্যে ধাক্কাধাক্কির ঘটনায় দু’পক্ষের ৪ জনকে আটক করেছে লালপুর থানা পুলিশ। শুক্রবার (৫ জুন ২০২০) সকালে এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, লালপুর উপজেলার দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের ভেল্লাবাড়ীয়া হযরত বাগু দেওয়ান (র.) মাজার মসজিদের বর্তমান লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মুল বানীন দ্যুতি সভাপতি ও সদস্য সচিব শফিকুল ইসলাম শফির কমিটির মেয়াদ শেষের দিকে হওয়ায় বর্তমান সংসদ সদস্য শহিদুল ইসলাম বকুল এমপি স্থানীয় আব্দুস সাত্তারকে সদস্য সচিব করে নতুন মাজার কমিটি গঠনের জন্য ডিও প্রদান করেন। অথচ উক্ত কমিটি অনুমোদনের পূর্বেই দায়িত্ব বুঝে নিতে বর্তমান মাজারের খাদেমকে শুক্রবার সকালে হুমকি ধামকি মারধর দিয়ে বিতাড়িত করে।
পরে বর্তমান কমিটির সদস্য সচিব শফি সহ বাকীরা এসে প্রস্তাবিত নতুন কমিটির সদস্য ও সমর্থকদের ধাওয়া দিয়ে বিতাড়িত করার চেষ্টা করে। এ সময় দু’পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়। স্থানীয় ভাবে লালপুর থানা পুলিশ খবর পেয়ে দু’পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেয় ও শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার স্বার্থে ঘটনাস্থল থেকে ৪ জনকে থানায় নিয়ে আসে। থানায় নিয়ে যাওয়া ব্যক্তির হলেন, মাজারের খাদেম রেজাউল করিম রেজা, প্রস্তাবিত কমিটির পক্ষের রামকৃষ্ণপুর গ্রামের খোরশেদ আলীর দুই ছেলে সুমন আলী, সুজন আলী এবং মৃত মহাসিনের ছেলে ভুট্টু আলী।
বর্তমান কমিটির সদস্য সচিব শফিকুল ইসলাম শফি বলেন, বর্তমান কমিটি রয়েছে। অথচ অনুমোদনহীন প্রস্তাবিত কমিটির সদস্যরা অবৈধ পন্থায় মাজার মসজিদ এলাকায় প্রবেশ করে বিশৃঙ্খলা ও নাশকতা সৃষ্টির অপচেষ্টা চালায়। বিষয়টি প্রশাসন ও কমিটির সভাপতি ইউএনওকে জানানো হয়েছে। প্রস্তাবিত কমিটির সদস্য সচিব দাবি করা আব্দুস সাত্তার জানান, কমিটি এখনো অনুমোদন হয় নি। তবে আমরা সকলেই একই এলাকার বাসিন্দা। এ মসজিদে সবাই নামাজ আদায় করি। অবস্থানগত ভুল বোঝাবুঝিতে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে গেছে।
এ ব্যাপারে লালপুর থানার ওসি সেলিম রেজা বলেন, মামলা হওয়ার মতো ঘটনা হয় নি, দু’পক্ষকেই ধরে নিয়ে এসেছি শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার স্বার্থে।
ভেল্লাবাড়ীয়া বাগুদেওয়ান মাজার কমিটির সভাপতি ও লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মুল বানীন দ্যুতি বলেন, উত্তেজনা হয়েছিল, থেমে গেছে। মামলা মোকাদ্দমার বিষয়টি জানা নেই। নতুন কমিটি অনুমোদন না হলে তো সেখানে যাবার সুযোগ নেই, বর্তমান কমিটিই দায়িত্বে থাকবে । কোন প্রকার বিশৃংল পরিবেশ যেনো আর না হয় এজন্য উভয় পক্ষকে বলা হয়েছে।

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top