logo
news image

ঈশ্বরদীতে আরো ১ জন করোনা সনাক্ত মোট আক্রান্ত ৩ জন

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ
ঈশ্বরদীর শাহিনুর ইসলাম সারিং (৩০) নামে এক ব্যক্তির করোনা পরীার ফলাফল পজেটিভ হয়েছে। সে সাঁড়া ইউনিয়নের আশনা গ্রামের শামসের রহমান শাম হুজুরের ছেলে। সাঁড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক রানা সরদার শাহিনুর ইসলামের করোনায় আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
শাহিনুর রহমান সারং লালপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওটিবয় হিসেবে কর্মরত। তিনি আউট সোসিং হিসেবে  কাজ করেন।
মুঠোফোনে শাহিনুর রহমানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, গত ৫ মে তারসহ মোট ১১ জনের নমুনা সংগ্রহ করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। মঙ্গলবার (১২ মে) লালপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে তাকে মুঠোফোনে জানানো হয় সেসহ আরো একজনের ফলাফল পজেটিভ এসেছে। বাড়িতেই তাকে আইসোলেশনে থাকতে বলা হয়েছে। তবে কোন উপসর্গ তার নেই বলে তিনি জানিয়েছেন।
 ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডাঃ এফ এ আসমা খান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বিষয়টি আমি শুনেছি। আগামীকাল বুধবার তাঁর বাড়িতে প্রশাসনের লোকজনকে নিয়ে যাবো। তাঁর বাড়ি লকডাউন করা হবে। তিনি আরো বলেন, তার মধ্যে কোন উপসর্গ নেই এবং আইসোলেশনেও ছিলেন না। গত ৫ই মে  পরীক্ষার জন্য নমুনা পাঠানোর ৭ দিন পর রিপোর্ট এসেছে। সে বাড়িসহ বাইরে মেলামেশার করার পাশাপাশি অফিসও করেছে। এরই মধ্যে সে আরো কতো মানুষকে সঙক্রামিত করেছে, তা আল্লাহ্ই জানেন। যেকারণে কালই তার বাড়ির সকলের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।    
এর আগে গত সোমবার ঢাকা স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায়  ঈশ্বরদী উপজেলা জাসদের সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তফা বাচ্চু’র করোনা পরীার ফলাফল পজেটিভ আসে। তিনি ঈশ্বরদী শহরের বিমানবন্দর সড়কের রহিমপুর এলাকার বাসিন্দা। বর্তমানে তিনি ঢাকা কুর্মিটোলা করোনা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
এছাড়াও গত শুক্রবার ঈশ্বরদীর মুলাডুলি ইউনিয়নের চাঁদপুর গ্রামের রেহানুল করিম রেবিন নাটোর হাসপাতালে কর্মরত এক স্বাস্থ্যকর্মীর করোনা ফলাফল পজেটিভ আসে। বর্তমানে তিনি চাঁদপুর নিজ বাসভবনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

সাম্প্রতিক মন্তব্য