logo
news image

ঈশ্বরদীতে ধর্ষণের পর ইন্টারনেটে ভিডিও ভাইরাল ১২ যুবক গ্রেফতার

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ
ঈশ্বরদীর এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণের পর ভিডিও ইন্টারনেটে ভাইরাল করার অপরাধে ১২ জন যুবককে ঈশ্বরদী থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে । ছলিমপুর কলেজের স্নাতক শ্রেণীতে অধ্যায়নরত এবং বিবাহিত ওই ছাত্রীর বাড়ি সাহাপুর ইউনিয়নের পূর্বপাড়া গ্রামে।
ঈশ্বরদী থানায় এঘটনায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করা হলে সকালে সাহাপুর ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো সাহাপুর ইউনিয়নের মহাদেবপুর গ্রামের মনজুর রহমানের পুত্র মেহেদী হাসান (২২), রেজাউল মালের পুত্র রাজিব মাল, আজিজুল ফরিরের পুত্র রাসেল (২০), দিয়াড় সাহাপুর গ্রামের মৃত আক্তার হোসেনের পুত্র রাব্বি হোসেন (২০), তরিকুল ইসলামের পুত্র শিহাব হোসেন (১৯), কেদু শাহ’র পুত্র শামিম হোসেন (২২), সোলাইমান হোসেনের পুত্র সৈকত হোসেন (২২), রাজ্জাক আহমেদের পুত্র রাজু আহমেদ (২০), সিদ্দিকুর রহমানের পুত্র শফিউল ইসলাম সালমান (২১), সাহাপুরের দেবেন মহলদারের পুত্র ইমন আলী (২১), আশরাফুল ইসলামের পুত্র আশিক (২১), ঈশ্বরদী পৌর এলাকার সাঁড়া গোপালপুরের মাহাবুব আহমেদের পুত্র মাহফুজ আহমেদ (২০)। বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পুলিশ আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে পাবনা জেলা কারাগারে প্রেরণ করেছে।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ বাহাউদ্দীন ফারুকী জানান, অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে সদ্য বিবাহিত এক গৃহবধূকে ধর্ষণ এবং ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করা হয়। পরে ভিডিওটি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ায় ওই গৃহবধূর সংসার ভেঙ্গে যায়। ওই গৃহবধূর বাবা এ ঘটনায় ঈশ্বরদী থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে তিনি জনিয়েছেন। ওসি আরো গ্রেফতারদের আইনের ৩টি ধারা সংযোজন করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, পর্নোগ্রাফি ও ডিজিটাল আইনে মামলা নথিভুক্ত করে পাবনা জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সাম্প্রতিক মন্তব্য