logo
news image

ঈশ্বরদীর পাকশীতে হার্ডিঞ্জ ব্রিজের নীচে অজ্ঞাতনামা যুবকের লাশ উদ্ধার

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ
 ঈশ্বরদীর পাকশীতে হার্ডিঞ্জ ব্রীজের নিচ হতে অজ্ঞাতনামা (২৬) এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার ব্রিজের ১৫ নম্বর গার্ডারের নিচে পদ্মা নদীর বালুর চরে মরদেহটি দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পাকশী পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দেয়। ঘটনাস্থল হতে মরদেহ উদ্ধার করে পাকশী ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যরা।   
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকালে হার্ডিঞ্জ সেতুর নিচে পদ্মা নদীর ধারে যুবকের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে থানায় ও পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দেয়া হয়। পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক শহিদুল ইসলাম শহীদ এ খবর নিশ্চিত করেছেন।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ বাহাউদ্দীন ফারুকী জানান, ভোর তিনটার দিকে ঢাকা হতে খুলনা গামী চিত্রা এক্সপ্রেস আন্তঃনগর ট্রেনটি ব্রিজ অতিক্রম করার সময় ওই যুবক ব্রীজের গার্ডারের সাথে ধাক্কা খেয়ে ১৫ নং গার্ডারের নীচে পড়ে যায় বলে প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে। যুবকের পড়নে জিন্সের হাফ প্যান্ট ও হাফ হাতা গেঞ্জি রয়েছে। উদ্ধার হওয়া নিহত যুবকের পরিচয় শনাক্তের চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি পাবনা মেডিক্যাল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ওয়ারিশ না পাওয়া গেলে লাশ আঞ্জুমান মফিদুল ইসলামে তাকে দাফন করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন। এ ব্যাপারে ঈশ্বরদী থানায় একটি অপমৃত্যু (ইউডি) মামলা করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত: মাঝেমধ্যেই পাকশী হার্ডিঞ্জ সেতুর নীচ হতে লাশ পাওয়া যাচ্ছে। লাশগুলো ব্রীজের সাথে ধাক্কা খেয়ে গুরুতর জখম অবস্থায় উদ্ধার হচ্ছে। রেল কর্তৃপক্ষ ছাদে যাত্রী পরিবহনের ক্ষেত্রে তৎপরতা চালানোর কারণে ঈদ বা বড় ধরণের ছুটি ছাড়া ছাদে যাত্রী পরিবহন অনেক হ্রাস পেয়েছে। যে মরদহ উদ্ধার হচ্ছে সেগুলো ইউডি মামলা হচ্ছে। কোন তদন্ত হচ্ছে না। এই ঘটনাগুলো পরিকল্পিত হত্যাকান্ড কিনা সে বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে না।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য