logo
news image

নাটোরে বিজয় ফুল উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক।  ।  
নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা উপলব্ধি এবং সংগ্রামী ইতিহাস জানানোর উদ্দেশ্যে নাটোরে বিজয় ফুল তৈরী প্রতিযোগিতা ও বিজয় ফুল উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার (২ নভেম্বর) সকাল ৯টায় নাটোর শংকর গোবিন্দ চৌধুরী স্টেডিয়ামে জেলার সাতটি উপজেলার বিজয়ী শিক্ষার্থীরা তিনটি গ্রুপে জেলা প্রশাসন আয়োজিত প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। এর আগে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পর্যায়ে অনুষ্ঠিত প্রতিযোগিতার বিজয়ী শিক্ষার্থীরা উপজেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে।
প্রতিযোগিতায় সবুজ জমিনে সাদা রঙের ম্যাটেরিয়ালে ছয়টি পাঁপড়ি ও একটি কলি সহযোগে বিজয় ফুল শাপলা তৈরী করে প্রতিযোগী শিক্ষার্থীরা। ফুলের ছয়টি পাঁপড়ি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছয় দফা এবং একটি কলি তাঁর ৭ মার্চের ভাষণকে স্মরণ করাবে। ফুল তৈরীতে ব্যবহার করা হয় কাগজ, কাপড় ও প্লাস্টিকশীট। শিশু থেকে পঞ্চম, ষষ্ঠ থেকে অষ্টম এবং নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণী-এ তিনটি গ্রুপে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণ করে।
বিজয় ফুল উৎসবে বিজয় ফুল তৈরী ছাড়াও একক ইভেন্টে গল্প রচনা, কবিতা রচনা, কবিতা আবৃত্তি, চিত্রাংকন, একক অভিনয় ও চলচ্চিত্র নির্মাণ এবং দলগত ইভেন্টে জাতীয় সংগীত ও দেশাতœবোধক সংগীত প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়।
সকাল নয়টায় বিজয় ফুল প্রতিযোগিতা উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন নাটোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ শফিকুল ইসলাম শিমুল এমপি। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভা প্রধানের দায়িত্ব পালন করেন জেলা প্রশাসক মোঃ শাহরিয়াজ। প্রতিযোগিতা শেষে অতিথিবৃন্দ বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার ও সনদ প্রদান করেন।
স্টেডিয়ামে বিপুল সংখ্যক দর্শক এ প্রতিযোগিতা উপভোগ করেন। তিনটি গ্রুপের বিজয়ীরা পরবর্ত্তীতে বিভাগীয় পর্যায়ে প্রতিযোগিতা শেষে জাতীয় পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করবে।
নাটোরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোঃ আশরাফুল ইসলাম জানান, প্রতিযোগিতার প্রাতিষ্ঠানিক পর্যায়ের ফুলগুলো আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতিটি শ্রেণী কক্ষের সামনে সাজিয়ে রাখা হবে এবং উপজেলা ও জেলা পর্যায়ের প্রতিযোগিতার ফুলগুলো সংরক্ষণ করে আগামী বিজয় দিবসের কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে মঞ্চের সাজসজ্জার কাজে ব্যবহার করা হবে। শিশু-কিশোর সমাবেশে অংশগ্রহণকারীগণ তাদের পোশাক বা ইউনিফর্মে বিজয় ফুল পরিধান করবে। আগ্রহী ক্রেতা পাওয়া গেলে ফুল বিক্রি করে প্রাপ্ত অর্থ অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা ও বিশেষ শিশুদের কল্যাণে ব্যয় করা যাবে।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top