logo
news image

কানাডায় বিশ্বজয়ী নাজমুন নাহারের সাথে আড্ডা

নিজস্ব প্রতিবেদক, টরন্টো।  ।  
বাংলাদেশের পতাকা হাতে ১৩৫টি দেশ ভ্রমণের ঐতিহাসিক রেকর্ড গড়ে টরন্টো এসে পৌঁছেছেন 'সর্বাধিক দেশ ভ্রমণকারী প্রথম বাংলাদেশি নাজমুন নাহার। ৫ অক্টোবর শনিবার সন্ধ্যায় নগরীর মিজান অডিটোরিয়ামে তাঁকে নিয়ে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে 'দেশে বিদেশে'। অনুষ্ঠানে নাজমুন নাহারের জীবনের উপর নির্মিত একটি 'তথ্যচিত্র' প্রদর্শিত হয়। এছাড়া পৃথিবীর পথে পথে ঘটে যাওয়া সব মজার অভিজ্ঞতা, পাহাড়-পর্বত, সমুদ্র পাড়ি দেওয়ার রোমাঞ্চকর গল্প বলেন 'দেশে বিদেশে' আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে।
ছোটবেলা থেকেই প্রকৃতির প্রেমে পড়েছিলেন নাজমুন নাহার। সে থেকেই ভ্রমণই তার নেশা। উৎসাহ দিয়েছিলেন তার বাবা। তার দাদা ছিলেন একজন ইসলামিক স্কলার ও ভ্রমণকারী। নাজমুন নাহার পড়াশোনা করেছেন সুইডেনের ইউনিভার্সিটিতে। তিনি তার মাকে নিয়েও ঘুরেছেন পৃথিবীর ১৪টি দেশ। বাবার অনুপ্রেরণায় ডানা মেলেছেন শৈশবেই। উড়ছেন এখনও। লাল সবুজের পতাকাকে সারা বিশ্বে পৌঁছে দেওয়ার সংগ্রামে চাপা পড়েছে তার সংসার স্বপ্নও। বিশ্বরূপ দেখতে গিয়ে মানুষের মাঝে পরিচয় করে দিয়েছেন বাংলাদেশের লাল-সবুজের পতাকাকে। দেশ-দেশান্তরে শিশুদের মাঝে পৌঁছে দিয়েছেন জীবন দর্শনের শান্তির বার্তা।
সম্প্রতি নাসাউ কলোসিয়ামের ফোবানা সম্মেলনে নাজমুনকে সম্মানিত করা হয়েছিল ‘মিস আর্থ কুইন অ্যাওয়ার্ড’ ও ইয়ুথ কনফারেন্সে ‘গ্লোব অ্যাওয়ার্ড’ দিয়ে। এ ছাড়া এ বছর তিনি পেয়েছেন অতীশ দীপঙ্কর গোল্ড মেডেল অ্যাওয়ার্ড, জন্টা ইন্টারন্যাশনাল অ্যাওয়ার্ড, রেড ক্রিসেন্ট মোটিভেশনাল অ্যাওয়ার্ড। এছাড়া ২০১৯ এর ২৪ এপ্রিল 'তারুণ্যের আইকন' উপাধিতে অনন্যা সম্মাননা অর্জন করেছেন নাজমুন নাহার।  
নাজমুন নাহার সোহাগী তাঁর ফেসবুকে বলেন, আমি এক পৃথিবীর গল্প নিয়ে হাজির হয়েছিলাম সেদিন টরন্টোর মাটিতে। টরোন্টোতে আমার বিশ্ব অভিযাত্রার গল্প নিয়ে টরন্টো-বাংলাদেশীদের সাথে এক মুখরিত সন্ধ্যায় 'দেশ বিদেশে' আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আসন্ন ফেডারেল নির্বাচনে অসোয়া আসনে লিবারেল মনোনীত এমপি প্রার্থী আফরোজা হোসেন। বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব আসমা আহমেদ, বিশিষ্ট কমিউনিটি ব্যক্তিত্ব মহসীন ভূঁইয়া,
মিন্ট ওয়ান প্রোপার্টি ম্যানেজমেন্ট এর ডলি ভূঁইয়া‌ সহ সাংবাদিক, সাহিত্যিক এবং সাংস্কৃতিক ব্যক্তিবর্গসহ কমিউনিটির বিভিন্নস্তরের নেতৃবৃন্দ।
সন্ধ্যা ৭টায় আমার বিশ্ব ভ্রমণের উপর প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শণীর মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন 'দেশ বিদেশে' এর সম্পাদক নজরুল মিন্টো! সবার ভালোবাসা, অভিনন্দন ছিল আমার আগামী পথ চলার প্রেরণা। ধন্যবাদ আয়োজকদের, অনেক ধন্যবাদ সবাইকে।
আমি বলেছিলাম আমার একটি দৃঢ় সংকল্প আমাকে কিভাবে নিয়ে গিয়েছিল পৃথিবীর পথে পথে। আমি কিভাবে সেই সংকল্পকে ধারণ করে পৃথিবীর সাথে দেখা করছি বাংলাদেশের লাল-সবুজের পতাকা হাতে।
পৃথিবীকে দেখতে দেখতে কিভাবে আমি পৃথিবীর কাছ থেকে শিখেছি! অপূর্ব এই পৃথিবীর অসীমতার মাঝে আমি কিভাবে নিজেকে একাত্ম করেছি। আমি কিভাবে দেখেছি পৃথিবীর আনাচে কানাচে লুকিয়ে থাকা মানুষের জীবনের ভিন্নতা, আমি কিভাবে পাড়ি দিয়েছি দুর্গম- দুর্ধর্ষ- দুর্বার সকল পথ। 

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top