logo
news image

গবেষণায় ভিসি অ্যাওয়ার্ড পেলেন শাবির দুই শিক্ষক

নিজস্ব প্রতিবেদক, শাবি।  ।  
গবেষণায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ভিন্ন ভিন্ন ক্যাটাগরিতে ভিসি অ্যাওয়ার্ড-১৯ (ভাইস চ্যান্সেলর অ্যাওয়ার্ড) পেয়েছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষক।
সোশ্যাল সায়েন্স ক্যাটাগরিতে সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. এ.এইচ.এম বেলায়েত হোসেন এবং বিজ্ঞান ক্যাটাগরিতে বায়োকেমিস্ট্রি অ্যান্ড মলিকুলার বায়োলজি (বিএমবি) বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ড. মো. নুরশাদ আলী এ সম্মাননা লাভ করেন।
শনিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা কেন্দ্র কর্তৃক আয়োজিত ‘৭ম বার্ষিক কনফারেন্স অন রিসার্স ফাইন্ডিং’ শীর্ষক দুই দিনব্যাপী কর্মশালায় এ দুই শিক্ষকের নাম ঘোষণা করা হয়।
এ সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) এর সদস্য অধ্যাপক ড. মো. আখতার হোসেন।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধক্ষ্য অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম ও পুবালী ব্যাংকের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর মোহাম্মদ আলী।
বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা কেন্দ্রের বরাত দিয়ে জানা যায়, এবারের উপাচার্য অ্যাওয়ার্ডের জন্য বিজ্ঞান ক্যাটাগরিতে ৫জন এবং সোশ্যাল সায়েন্সেস অ্যান্ড বিজনেস ক্যাটাগরিতে ৫জন আবেদন করে। আবেদনগুলোর মধ্যে জার্নালে প্রকাশিত ইমপ্যাক্ট ফ্যাক্টর ও প্রবন্ধের মেরিট বিবেচনা করে জমাকৃত প্রবন্ধ সমূহের মানদণ্ড নির্ধারণ করা হয়। এবং সে ভিত্তিতে উপাচার্য অ্যাওয়ার্ডের জন্য দুই ক্যাটাগরিতে এ দুই শিক্ষককে মনোনীত করা হয়েছে।
গবেষণার বিষয় জানতে চাইলে্ এ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত অধ্যাপক ড. এ এইচ এম বেলায়েত হোসেন বলেন, ‘টেকসই উন্নয়নের একটি লক্ষ্যকে নিয়ে আমরা কাজ করেছি। যেখানে স্মল অ্যান্ড মিডিয়াম এন্টারপ্রাইজে কর্মীদের সঙ্গে ব্যবস্থাপনার সম্পর্ককে দেখেছি। আমরা পেয়েছি যেখানে কর্মী ও ব্যবস্থাপনার মধ্যে সম্পর্ক ভাল, যারা সামাজিকভাবে সম্পর্কিত সে প্রতিষ্ঠানের উন্নতি অন্য প্রতিষ্ঠানের থেকে আলাদা।’
‘ডেভেলপমেন্ট ইন প্র্যাকটিস’ ইমপ্যাক্ট জার্নালে প্রকাশিত হয় গবেষণাটি। গবেষণাপত্রের লিংক (https://www.tandfonline.com/doi/full/10.1080/09614524.2018.1404008)।
 সম্মাননাপ্রাপ্ত সহকারী অধ্যাপক ড. মো. নুরশাদ আলী বলেন, আমার গবেষণার মূল বিষয় ছিল মানুষের স্থূলতা/ওজন বেড়ে যাওয়ার সাথে রক্তের ইউরিক এসিডের কোনও সম্পর্ক আছে কি না তা দেখার চেষ্টা করেছি। বাংলাদেশি বয়স্কদের উপর এ গবেষণায় আমরা পেয়েছি ইউরিক এসিডের কারণে স্থূলতা বা ওজন বৃদ্ধি হয়। আর এদের মধ্যে একটি ইতিবাচক সম্পর্ক পেয়েছি।  
‘প্রিভেলেন্স অব হাইপারইউরিসেমিয়া অ্যান্ড দ্য রিলেশনশীপ বিটুইন সিরাম ইউরিক এসিড অ্যান্ড অবেসিটি; এ স্টাডি অন বাংলাদেশি অ্যাডাল্ট শিরোনামে ইমপ্যাক্ট জার্নালে প্রকাশিত হয়। গবেষণাপত্রের লিংক (https://journals.plos.org/plosone/article?id=10.1371/journal.pone.0206850)।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top