logo
news image

সাস্ট ক্লাব নির্বাচন: কোষাধ্যক্ষ পদে প্রার্থীদের প্রত্যাশা

নিজস্ব প্রতিবদেক।  ।  
আগামী ১৯ জুলাই শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের সংগঠন সাস্ট ক্লাব লিমিটেডের কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচন। রাজধানীর নিকেতনে ক্লাবের কার্যালয়ে ওই দিন বিকেল ৩.০০ টা থেকে সন্ধ্যা ৭.০০ টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। সাস্ট ক্লাবের নির্বাচনে ১১টি পদে মোট ২৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। কোষাধ্যক্ষ পদের প্রার্থী হলেন গোলাম কদর স্বপন (০০১৯) ও খলিলুর রহমান সুহেল (০৩৯০)।
তাদের প্রত্যাশার কথা তুলে ধরা হলো:
গোলাম কদর স্বপন (০০১৯):
কাজী গোলাম কদর স্বপন। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের ২০০৩-০৪ সেশনের ছাত্র। সাস্টিয়ান ভাতৃত্ববোধ এবং এক অনন্য চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে সকল সাস্টিয়ানদের জন্য একটি প্লাটফর্ম গঠনের যে সর্বশেষ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়, আমি প্রথম থেকেই তার সাথে ছিলেন। প্রথমে "এওয়ারনেস টীম" এর একজন সদস্য হিসাবে এবং পরবর্তিতে গঠিত প্রতিষ্ঠা কালীন কার্যকরী পরিষদ়্ এর কোষাধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন।
সকলের আন্তরিক সহযোগিতায় আমাদের প্রাণের প্লাটফর্ম "সাস্ট ক্লাব লিঃ" এখন বাস্তবে রূপ নিতে শুরু করেছে। ইতোমধ্যেই ক্লাব এর নিবন্ধন এর মত জটিল প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। আমাদের এখন একটি অস্থায়ী অফিস ও রয়েছে যেখানে সদস্যগণ নিয়মিত মিলিত হতে পারছেন। সদস্যদের সক্রিয় অংশগ্রহণ এবং সহযোগিতায় আমাদের কিছু খেলাধুলা এবং বিনোদন সামগ্রীও যোগাড় করা হয়েছে।
কিন্তু এখানেই শেষ নয়। সাস্ট ক্লাবকে সকল সাস্টিয়ানদের সত্যিকারের মিলনমেলা হিসাবে গড়ে তুলতে এখনো পাড়ি দিতে হবে বহুদূর পথ এবং এর জন্য প্রয়োজন দীর্ঘমেয়াদী কৌশলগত পরিকল্পনা। মনে রাখতে হবে আমাদের এখনকার সাস্ট ক্লাব একটা চারা গাছের মত। আমরা এটাকে মহীরুহ হিসাবে দেখতে চাই এবং এর জন্য প্রয়োজন নিঃস্বার্থ ভালবাসা এবং নিবিড় পরিচর্যা।  
দেখতে দেখতে আমাদের ক্লাব এর কার্যকরী পরিষদ়্ এর প্রথম নির্বাচন এসে গেছে। এই নির্বাচনে সকলের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ এবং উৎসাহ উদ্দীপনা দেখে আমি যারপরনাই আনন্দিত। সকল সদস্যদের এমন আগ্রহ আমাকে আশাবাদী করে তোলে যে আমাদের এই ভাতৃত্ববোধ বেঁচে থাকবে চিরকাল।
আসন্ন ১৯ জুলাই এর নির্বাচনে আমি "কোষাধ্যক্ষ" পদে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।  তিনি বলেন, সাস্ট ক্লাবকে সকল সাস্টিয়ান'দের জন্য বটবৃক্ষের ন্যায় ছায়াদায়ী একটি মহীরুহে পরিণত করার জন্যে যে অক্লান্ত পরিশ্রম এবং ভালবাসা দরকার, সেখানে একজন সাস্টিয়ান হিসাবে আমার ভাগের কাজটুকু আমি সুযোগ পেলে করতে চাই।
সাস্টিয়ান'দের প্রতি আমার অগাধ বিশ্বাস। তারা সবসময়ের মত এবারো সঠিক সিদ্ধান্ত নেবে। সদস্যদের সমর্থন এবং ভালোবাসায় আমি যদি এবার নির্বাচিত হই তাহলে নিচে বর্ণিত পরিকল্পনা সমূহ বাস্তবায়ন করতে সর্বোচ্চ সচেষ্ট হব বলে অঙ্গীকার করছি। এক্ষেত্রে আমাদের মনে রাখতে হবে, চারাগাছ যেমন রাতারাতি মহীরুহ হয়ে যায়না, তেমনি সাস্ট ক্লাব কে গড়ে তুলতে হলেও প্রয়োজনীয় সময় দিতে হবে।
১। পরিষদের সকল সদস্যদের নিয়ে ক্লাবের জন্য ২০ বছর মেয়াদী, ১০ বছর মেয়াদী, ৫ বছর মেয়াদী এবং ১ বছর মেয়াদী পরিকল্পনা প্রণয়ন করা এবং সে লক্ষ্যে করণীয় ঠিক করা। ক্লাবের নিজস্ব জমি এবং ভবন তৈরির দীর্ঘমেয়াদী কৌশলগত পরিকল্পনা করা।
২। ক্লাবে পেশাদারী কর্মপদ্ধতি প্রচলন করা। কমিটির মেয়াদকালে অর্জনের জন্য সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা ঠিক করা এবং কমিটি এবং উপকমিটি সমূহের প্রত্যেক সদস্যদের জন্য কর্ম পরিকল্পনা ঠিক করা। প্রত্যেক সদস্যদের তাদের কর্ম পরিকল্পনা এবং কর্মসম্পাদনের হার সম্পর্কে স্পষ্টতা এবং জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা।
৩। ক্লাবের একটি সামগ্রিক ব্যবস্থাপনার পরিকল্পনা করা এবং সেভাবে বাস্তবায়ন করা। সেই সাথে ক্লাবে যাতে একটি সুস্থ এবং সুন্দর কর্ম-পরিবেশ এবং সংস্কৃতি সৃষ্টি হয় সে লক্ষ্যে কাজ করা।
৪। ক্লাবের বার্ষিক বাজেট প্রণয়ন করা। বাজেটে ব্যয় এর খাতগুলোকে যথাসম্ভব দক্ষ এবং কৌশলগত ভাবে ব্যবস্থাপনা করা এবং আয়ের খাতসমুহ যথাসম্ভব বৃদ্ধি করা। বছরশেষে ক্লাবের নীট সম্পদ যাতে বৃদ্ধি হয় তা নিশ্চিত করা।
৫। ক্লাবের উদ্বৃত্ত সম্পদ দক্ষভাবে বিনিয়োগ করা যাতে করে তা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পায়।
৬। গঠনতন্ত্র, উপবিধি এবং কোম্পানি আইন অনুযায়ী এবারের নির্বাচনে অবস্থান নির্বিশেষে সকলের ভোটাধিকার প্রয়োগ নিশ্চিত করা যায়নি যা অত্যন্ত দুঃখজনক। এছাড়াও বর্তমান গঠনতন্ত্র এবং উপবিধিতে আরো কিছু সংশোধন, সংযোজন, পরিবর্তন, পরিবর্ধন এবং পরিমার্জন এর প্রয়োজন লক্ষ্য করা গেছে। যথাযথ আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করে গঠনতন্ত্র এবং উপবিধি তে এসকল প্রয়োজনীয় সংশোধন, সংযোজন, পরিবর্তন, পরিবর্ধন এবং পরিমার্জন করার উদ্যোগ গ্রহণ করা।
৭। ক্লাবের উপবিধিতে উল্ল্যেখিত সকল উপকমিটি সমূহ এবং প্রয়োজনীয় অন্যান্য উপকমিটিসমূহ অতিসত্বর গঠন করা এবং কমিটিগুলো যাতে সুন্দর ভাবে কাজ করতে পারে তা তদারকি এবং নিশ্চিত করা। কমিটিগুলোর মাধ্যমে ক্লাবের কার্যক্রমে যত বেশি সম্ভব সাধারণ সদস্যদের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা।
৮। ক্লাবের সকল সদস্যদের বর্তমান ঠিকানার পরিসংখ্যান তৈরি করে বেশিরভাগ সদস্যদের যোগাযোগ এর সুবিধা-সম্বলিত স্থানে ক্লাবের অফিস স্থানান্তরিত করা। অফিস স্থানান্তরিত করার সময় ক্যন্টিন/রেস্তোরা স্থাপন সহ ক্লাবের জন্য অন্যান্য আরো আয়ের সংস্থান করা যায় এমন স্থান কে প্রাধান্য দেয়া।
৯। আমাদের সকল সাস্টিয়ানদের গর্ব আমাদের ঐক্য, ভাতৃত্ববোধ এবং মানবিক চেতনা। সাস্টিয়ানরা একে অপরের বিপদে যেভাবে ঝাঁপিয়ে পরে তা নজিরবিহীন। প্রকৃতপক্ষে আমাদের এই মানবিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে গিয়েই একটি কেন্দ্রীয় মঞ্চের প্রয়োজন হয় এবং এর ফলশ্রুতিতেই আমাদের আজকের এই সাস্ট ক্লাব বলে আমি বিশ্বাস করি। সাস্ট ক্লাবকে সকল সদস্যদের মিলনমেলা এবং সদস্য ও সকল সাস্টিয়ান'দের আশা ভরসার কেন্দ্রস্থল হিসাবে প্রতিষ্ঠিত করার লক্ষ্যে মানবিক কার্যক্রমসমুহ সমূহ ক্লাব থেকে কেন্দ্রীয়ভাবে সমন্বয়ের ব্যবস্থা করা। এছাড়াও বিপদগ্রস্থ সদস্যদের সাহায্যের জন্য পৃথক ফান্ড তৈরি, গ্রুপ ইনসিওরেন্স এবং এরূপ অন্যান্য প্রকল্পসমূহের উপযোগিতা যাচাই করা এবং সম্ভব হলে কার্যক্রম গ্রহণ করা।
১০। ক্লাবের সদস্যদের জন্য বিভিন্ন সেবা চালু করা - যেমন ব্যায়ামাগার স্থাপন, পাঠাগার স্থাপন, আরো বেশি খেলাধুলার ব্যবস্থা, ক্যন্টিন/রেস্তোরা চালুকরণ, সুবিধাজনক ব্যাংক এর ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড এর ব্যবস্থা করা যাতে করে অসংখ্য পণ্যে এবং দোকানে কেনাকাটায় ছাড় পাওয়া যায়, বিভিন্ন হাসপাতাল এবং রোগ নির্ণয় কেন্দ্রের সাথে মূল্যহ্রাস, অগ্রাধিকার ভিত্তিক সেবা, এবং সেবা প্যাকেজ এর চুক্তি সম্পাদন - ইত্যাদি।
১১। ক্লাবের সকল সদস্যদের বর্তমান পেশা এবং কর্মস্থল সম্পর্কে একটি কেন্দ্রীয় তথ্যভাণ্ডার স্থাপন করা এবং ক্লাবে একটি হেল্পডেস্ক চালু করা যাতে করে একজন ক্লাব সদস্য প্রয়োজনে অন্য সদস্যদের সাহায্য গ্রহণ করতে পারেন।
১২। ক্লাবের সদস্যদের মাঝে নেটওয়ার্কিং এবং ব্যাবসা প্রচারের প্লাটফর্ম তৈরি করা যাতে করে সকল সদস্য উপকৃত হতে পারেন।
১৩। বিশ্ববিদ্যালয়ের বর্তমান শিক্ষার্থিদের সাথে ক্লাবের নিয়মিত যোগাযোগ স্থাপন করা এবং বর্তমান শিক্ষার্থিদের জন্য সেমিনার আয়োজন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থি যারা নিজ নিজ ক্ষেত্রে সফল - তাদের সাথে আলোচনা সভার আয়োজন, বিভিন্ন ক্রীড়া এবং সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে উৎসাহ প্রদান, সদ্য পাশ করা ছাত্র ছাত্রীদের ইন্টার্নশীপ ও চাকুরীর ব্যবস্থা - ইত্যাদি কার্যক্রম গ্রহণ করা।  
১৪। ক্লাবের সদস্যদের নিয়ে নিয়মিত টাউন হল মীটিং করে ক্লাবের বিভিন্ন বিষয়ে পরামর্শ করা এবং সদস্যদের অভিযোগ এবং পরামর্শ সংগ্রহের এবং সেগুলো নিয়ে কাজ করার প্রক্রিয়া চালু করা।
১৫। ক্লাবের ওয়েবসাইটটির নিয়মিত হালনাগাদের মাধ্যমে সদস্যদের নিকট জবাদীহিতা, সমসাময়িক তথ্য-উপাত্ত তুলে ধরা ও একটি অনলাইন ডিসকাশন ফোরামের মাধ্যমে সদস্যদের মধ্যে বিষয়ভিত্তিক আলোচনার দুয়ার উম্মোচন করে যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলার ব্যবস্থা করা।
১৬। এছাড়াও পরিষদের অন্যান্য সদস্যদের উত্থাপিত ক্লাবের লক্ষ্য এবং উদ্যেশ্য সমূহের সাথে সাংঘর্ষিক নয় এবং ক্লাব তথা সকল সদস্যদের জন্য মঙ্গলজনক এমন যেকোনো উদ্যোগকে আমি সমর্থন জানাবো এবং সেগুলো বাস্তবায়নে নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যাব।
সাস্টিয়ান'রা সঠিক সিদ্ধান্ত নেয়। আমার বিশ্বাস, কোষাধ্যক্ষ সহ অন্যান্য সকল পদে সম্মানিত সদস্যগণ সেসকল ব্যক্তিকেই নির্বাচন করবেন যারা সত্যিকার অর্থে ক্লাবকে এবং তার সদস্যদেরকে ভালোবেসে নিঃস্বার্থ ভাবে প্রয়োজনীয় সময় দিতে পারবে; যারা সৃজনশীল, করিতকর্মা, পরিশ্রমী, কৌশলী; যারা সত্যিকার অর্থে যোগ্য এবং সেবামূলক প্রতিষ্ঠান গঠন এবং প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম। আমাদের এখন তাদেরকেই দরকার।
পরিশেষে, আপনাদের অবগতির জন্য আমার সংক্ষিপ্ত জীবনবৃত্তান্ত উপস্থাপন করলাম।
নামঃ কাজী গোলাম কদর, সাস্ট ক্লাব সদস্য নম্বরঃ ০০০১৯, বিভাগঃ ব্যবসায় প্রশাসন, সেশনঃ ২০০৩-২০০৪
ডিগ্রীঃ Bachelor of Business Administration (BBA)
উচ্চশিক্ষাঃ Masters of Business Administration (MBA), নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়, যুক্তরাষ্ট্রের কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে "Value Investing" এর উপর উচ্চতর প্রশিক্ষণ।
কর্মজীবনঃ
সহপ্রতিষ্ঠাতা, ব্যবস্থাপনা অংশীদার এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, SYNCHRONOUS ICT এই সফটওয়্যারে উন্নয়ন প্রতিষ্ঠানটি আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র থাকাকালীন সময়ে ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠা করি যা আজ পর্যন্ত দেশে এবং বিদেশে সুনামের সাথে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে।
সহপ্রতিষ্ঠাতা এবং পরিচালক, আস্থা কন্সট্রাকশন লিঃ
২০১২ সালে প্রতিষ্ঠিত এই সরকারী এবং বেসরকারী সরবরাহকারী এবং ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটি এখন পর্যন্ত অসংখ্য প্রজেক্ট সম্পন্ন করেছে এবং সুনামের সাথে ব্যবসা করে যাচ্ছে।
সবশেষে, সবাইকে ধন্যবাদ জানাতে চাই এই দীর্ঘ ইশতেহার পড়ার জন্য। আপনারা যদি আমাকে কোষাধ্যক্ষ পদে নির্বাচিত করেন, কথা দিচ্ছি ক্লাবের তথা সদস্যদের মঙ্গলের জন্য সততা এবং নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যাব। নিরন্তর শুভেচ্ছা।
খলিলুর রহমান সুহেল (০৩৯০):
কোষাধ্যক্ষ পদপ্রার্থী প্রকৌশলী মো: খলিলুর রহমান সুহেল, সাস্ট ৯ম ব্যাচ, সিইই ৪র্থ ব্যাচ।  
বর্তমান কর্মস্থল: লিড ইঞ্জনিয়িার, RCC প্রজক্টে,  কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়।  
সংগঠন:  কোষাধ্যক্ষ, সিইই এলামনাই এসোসিয়েশন।  
সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, সিইই এলামনাই এসোসিয়েশন ও  সাবেক কোষাধ্যক্ষ, সিইই এসোসিয়েশন ইত্যাদি ।  অন্যতম ফাউন্ডার: নোঙ্গর এবং স্পোর্টস সাস্ট।  
আহ্বায়ক বা প্রধান সংগঠক হিসেবে সম্পন্ন করা প্রোগ্রাম সমুহ:
ক. জাতীয় সম্মলেন “Prospects of Environmental Engineering In Bangladesh” : ২০০১
খ. Bonanza-05: সিলেটস্থ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বৃহত্তর কুমিল্লার ছাত্র-ছাত্রীর মিলন মেলা: ২০০৫               
গ. CEE 2nd Reunion-2018
ঘ. CEE National টুর-২০১৯ ইত্যাদি
নির্বাচনী ইশতেহার:
১।   সকল সদস্যের ভোটাধিকার নিশ্চিত করা।  
২।   ক্লাবের আর্থিক ব্যবস্থাপনা স্বচ্ছ ও জবাবদিহিতা মূলক করা।  
৩।   ক্লাবের আয় বৃদ্ধি ও ব্যয় নিয়ন্ত্রণ করা।  
৪।   SUST CLUB LTD এর নামে মোবাইল এপ্লিকেশন তৈরি করা।  
৫।   নূন্যতম সকল সদস্যের জন্য হেলথ ইনসুরেন্স করা।  
৬।   দল-মতের উর্ধে ক্লাবকে সার্বজনিন করা।  
৭।   ক্লাব পরিচালিত একটি চ্যারিটি ফান্ড করা।  
৮।   ক্লাবের নিজস্ব অফিস ও জায়গার ব্যবস্থা করা।  
৯।   ক্লাবে একটি লিগ্যাল শেল্টার শাখা খোলা।  
১০।   ক্লাবের একটি মিডিয়া শাখা খোলা।  
১১।   বছর জুড়ে সদস্যদের জন্য প্রোগ্রাম করা।  
১২।   ক্লাব মেম্বারশিপ কার্ডে বিশেষ সুবিধা সংযোজন করা।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top