logo
news image

গুরুদাসপুরে রাস্তায় ট্রাক্টরের মাটিতে জনদুর্ভোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, গুরুদাসপুর (নাটোর)।  ।  
রাস্তা নয় যেন মরন ফাঁদ। হঠাৎ সেই রাস্তা দিয়ে যাচ্ছিলেন ছাত্রলীগ সভাপতি। মুহুর্তের মধ্যেই তার সামনে ঘটে গেলো কয়েকটি মোটরসাইকেল দুর্ঘটনা। আহতও হয়েছেন কয়েকজন। কারণ রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করছিল অবৈধ মাটি বহনকারী ট্রাক্টর। যাতায়াতের সময় ট্রাক্টরে থাকা মাটি রাস্তায় পড়তে পড়তে যাচ্ছিলো। মাটি তো শুকনো নয় কাঁদা মাটি। সেই কারনে ওই রাস্তা দিয়ে চার চাকার গাড়ি কোন রকমে যেতে পারলেউ নিমিশেই পড়ে যাচ্ছিলো দুই চাকার মোটরসাইকেল।
বৃহস্পতিবার (১৪ মার্চ) সন্ধা ৭টা বেজে ১৭ মিনিটে গুরুদাসপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো.আতিয়ার রহমান বাধনের ফেসবুক আইডি থেকে সেই ঘটনার লাইভ দেওয়া হয়। ফেসবুক লাইভে ছাত্রলীগ সভাপতি বলছিলেন আমি সহ আমার কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী উপজেলার মশিন্দা টু কাছিকাটা রোড দিয়ে নওগা ওরশ মোবারকে যাচ্ছিলাম। কাছিকাটা বিশ্ব রোড পাওয়ার আগ মুহুর্তে এনডিপি ও মাদরাসার সামনের রাস্তায় দেখি কয়েকটি মোটরসাইকেল পড়ে গিয়েছে। কারন এই খানে অনেক গুলো কাঁদা মাটি পড়ে আছে। তার কারনে মোটরসাইকেলের চাকা পিছলে এই দুর্ঘটনা ঘটছে। এমনকি আমার বহরে থাকা কয়েকজনের ও একই অবস্থা হয়েছে। মানুষ কতটা খারাপ হলে এ রকম জনদুর্ভোগ করতে পারে। অবৈধ মাটি বহন কারী ট্রাক্টর যাতায়াতের কারনে রাস্তায় এই কাঁদা মাটি গুলো পড়ছে এবং নিমিষেই ঘটছে দুর্ঘটনা। ট্রাক্টরের মাটি রাস্তায় পড়ার কারনে তৈরি হচ্ছে ধুলা, কাঁদা ও ভাল রাস্তা হচ্ছে নষ্ঠ। ঘটনাস্থলে লাইভ চলাকালিন আরেকটি ট্রাক্টর চলে আসে তখন সেই ট্রাক্টরের ড্রাইভার ও হেল্পারকে সঙ্গে ছাত্রলীগ সভাপতি নিজে ও তার সঙ্গে থাকা কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মীকে নিয়ে রাস্তার কাঁদা মাটি পরিষ্কার করে রাস্তা দিয়ে গাড়ি যাতায়াতের ব্যবস্থা করে দেন। এবং তিনি আরো বলেন কয়েকদিন আগেও সাংসদ সবার উদ্দ্যেশ্যে মাইকিং করেছে অবৈধ ভাবে কৃষি জমিতে পুকুর খনন ও রাস্তা নষ্ঠ করে মাটি বহন করা যাবেনা। অথচ সাংসদের নির্দেশ উপেক্ষা করে কতিপয় কিছু অসাধু ব্যক্তি তাদের ব্যক্তি সার্থে এসকল কার্যক্রালাপ চালিয়ে যাচ্ছেন। তিনি অসাধূ ব্যবসায়ীদের উদ্দ্যেশে বলেন, জনদুর্ভোগ করে কেউ ব্যাক্তি সার্থ হাছিল করতে পারবে না। আমরা ছাত্রলীগ কখনও অন্যায়কে মেনে নেবো না। এলাকাবাসীর উদ্দ্যেশে তিনি বলেন আপনারা চুপ করে থাকবেন না। কারন এ রাস্তা আমার আপনার সবার সম্পদ। এ রাস্তা দিয়ে যারা যাতায়াত করে তাদের কেউ না কেউ আমার আপনার ভাই-বোন। তাই আসুন সবাই এ সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাড়াই।
ছাত্রলীগ সভাপতির ফেসবুক লাইভ দেখে তৎখনাত একজন সংবাদকর্মী ফোন দেয় স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও স্থানীয় সাংসদকে। সবাই মিলিত ভাবে ঘটনাস্থলে প্রশাসন পাঠিয়ে অবৈধ ট্রাক্টর গাড়ী বন্ধ করে দেয়।
গুরুদাসপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান মুঠোফনে বলেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। অবৈধপুকুর খনন ও রাস্তা নষ্ট করে মাটিবহন কারী ট্রাক্টরের সাথে যারা জড়িত তাদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবেনা। এবং গুরুদাসপুর উপজেলায় কোন ভাবেই অবৈধ ভাবে পুকুর খনন ও রাস্তা নষ্ঠ করে মাটি বহন করতে দেওয়া হবেনা।
স্থানীয় সাংসদ সদস্য আলহাজ্ব মো.আব্দুল কুদ্দুস মুঠোফনে বলেন, এলকার স্বার্থে জনগণের স্বার্থে আমি পুকুর খনন বন্ধে ও রাস্তা নষ্ঠ করে মাটি বহনকারীদের উদ্দ্যেশে মাইকিং করে তাদের নিষেধ করা হয়েছে এগুলো না করতে। কিন্তু কতিপয় কিছু অসাধু ব্যাক্তির কারনে আবার যখন শুরু হয়েছে তখন এই কাজের সাথে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে আইন-আনুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এবং নির্বাচনী এলকার সাধারণ মানুষের উদ্দ্যেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা প্রতিবাদ করলে প্রশাসনেরও কিছু করা লাগে না। তাই আপনাদের এলকার কৃষি জমি ও রাস্তা রক্ষা করার জন্য আপনাদের ভূমিকা আগে রাখতে হবে। আপনার সবাই এ সকল কাজের বিরুদ্ধে অবস্থান করবেন আপনাদের পাশে আমি আছি।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top