logo
news image

স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে পালালেন স্বামী

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঈশ্বরদী (পাবনা)।  ।  
পাবনার ঈশ্বরদীতে স্ত্রীর লাশ হাসপাতালে রেখে পালিয়েছেন প্রবাসী স্বামী। নিহত গৃহবধু নাম রেবেকা শাহিন রত্না (৩২)। গৃহবধু রত্না শহরের রহিমপুর খলিলের মোড় এলাকার মৃত আব্দুস সামাদ মজনুর মেয়ে ও প্রবাসী আব্দুল কুদ্দুসের স্ত্রী। বুধবার (১৬ জানুয়ারি) বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে স্বামীর উপর অভিমান করে শোবার ঘরের আড়ের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেন ওই গৃহবধু। রুম্মান খান নামের পাঁচ বছরের পুত্র সন্তান রয়েছে।
নিহতের পরিবার জানান, স্বামী আব্দুল কুদ্দুস একজন সৌদি প্রবাসী। দীর্ঘদিন পর গত কয়েকদিন আগেই দেশে ফিরেছেন। বিকেলে শিশু সন্তান রুম্মানকে (নিহত গৃহবধুর ছেলে) কোন কারণে মা রত্না চড়-থাপ্পর মারেন। শিশু সন্তানকে মারধরের কারণে স্বামী কুদ্দুস এ সময় স্ত্রী রত্নার গায়ে হাত তোলেন। এতে স্বামীর উপর অভিমান করে শোয়ার ঘরের আড়ার সাথে রত্না গলায় ফাঁস নেয়। সংগাহীন অবস্থায় হাসপাতালে আনা হলে ডাক্তার তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। স্ত্রীর মৃত্যুর খবর শুনে আব্দুল কুদ্দুস ভয়ে হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যায় ।
ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার তানজিলা মোস্তফা জানান, গলায় ফাঁস নিয়ে গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে। হাসপাতালে আনার পুর্বেই গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে।
ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী গলায় ফাঁস নিয়ে গৃহবধুর আত্মহত্যার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। স্বামী পলাতক রয়েছে। লাশ উদ্ধারসহ পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহনের প্রস্তুতি চলছে।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top