logo
news image

ভেড়ামারায় শতবর্ষী আম কেটে ইটভাটা

নিজস্ব প্রতিবেদক, ভেড়ামারা (কুষ্টিয়া)।  ।  
কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার ধরমপুর ইউনিয়নের সাতবাড়িয়া-ধরমপুর সড়কের উত্তর ভবানীপুর মর্দা বাগান এলাকার জনবসতিপুর্ণ পাড়াগায়ে শতবর্ষের আম গাছসহ অন্যান্য অর্ধশতাধিক গাছ কেটে  ইটভাটা স্থাপন করা হয়েছে। শতবর্ষের আম গাছ কেটে ফেলায় জনস্বাস্থ্য চরম হুমকিতে পড়েছে। পরিবেশ অধিদপ্তর ও সরকারের নির্দেশনাকে উপেক্ষা করেই নির্মাণ করা হয়েছে এই ইটভাটা।
লিখিত অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ভেড়ামারা উপজেলার ধরমপুর ইউনিয়নের সাতবাড়িয়া-ধরমপুর সড়কের উত্তর ভবানীপুর মর্দাবাগান এলাকার লিমন ব্রিকসের মালিক লিমন খাঁন ইটভাটা নির্মাণ করেছেন। প্রশাসন সহ সবাইকে  ম্যানেজ করে ইটভাটা চালানো হয়। ইট প্রস্তত ও ভাটা স্থাপন (নিয়ন্ত্রন) আইন ২০১৩ এর নির্দেশনার তোয়াক্কা না করেই প্রভাব খাটিয়ে মর্দা বাগানের শর্তবর্ষের আম গাছ কেটে সেই আম গাছের কাঠ ভাটায় পুড়ানো হচ্ছে। এতে করে একদিকে যেমন পরিবেশে নষ্ট হচ্ছে অন্যদিকে এই প্রভাবশালী লিমন খাঁন ধ্বংশ করছে ঐতিহ্যবাহী মর্দাবাগান। ইটভাটাটি মর্দা বাগান এলাকার জনবসতিপুর্ণ পাড়াগায়ের মধ্যে রয়েছে। লিমন ব্রিকসের মালিক লিমন খাঁন প্রকাশে অর্ধশতাধিক শতবর্ষের আম গাছসহ অন্যান্য গাছ কেটে  ফেলে। শর্ত বছরের আম গাছের কাঠ দিয়ে লিমন খাঁন ইটভাটায় আগুন দিয়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ করেও কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি বলে তারা জানিয়েছেন।
উপজেলা কৃষি অফিসের উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা জানান, জনবসতিপুর্ণ পাড়াগায়ের ইট ভাটা স্থাপন করার সুযোগ নেই। তারপর শতবর্ষের আম গাছসহ অন্যান্য অর্ধ শতাধিক গাছ কেটে  ইট ভাটা স্থাপন করা হয়েছে। মর্দা বাগানের বাঁকী শর্তবর্ষের আমগাছসহ অন্যান্য গাছ গুলো মারাত্মক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।
লিমন ব্রিকসের মালিক লিমন খাঁনের সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করলে তাকে পাওয়া যায়নি।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল মারুফ জানান, মৌখিক ভাবে শুনেছি। অভিযোগ পেলে ইটভাটার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top