logo
news image

বিসিকের হেমন্ত মেলা ও কারুশিল্প প্রদর্শনী শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা।  ।  
বিসিকের ৫ দিনব্যাপী হেমন্ত মেলা ও ত্রৈমাসিক কারুশিল্প প্রদর্শনী রোববার (১৩ জানুয়ারি) থেকে শুরু হয়েছে।
বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প করপোরেশন (বিসিক)’র মতিঝিল প্রধান কার্যালয় চত্ত্বরে সংস্থার চেয়ারম্যান মুশতাক হাসান মুহম্মদ ইফতিখার এ মেলা ও প্রদর্শনী উদ্বোধন করেন।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিসিকের পরিচালক (নকশা ও বিপণন) মো. মাহবুবুর রহমান। এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রধান নকশাবিদ মো. রাহাত উদ্দিন। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিসিকের পরিচালক পর্ষদের সদস্য ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ মেলায় অংশগ্রহণকারী কারুশিল্পীরা উপস্থিত ছিলেন।
বিসিকের নকশা কেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষণ গ্রহণকারীদের উৎপাদিত বিভিন্ন পণ্য সামগ্রী ক্রেতা-সাধারণের মাঝে পরিচিতি ও বাজার সৃষ্টির মাধ্যমে তাদেরকে সহায়তা প্রদানের উদ্দেশ্যকে সামনে রেখে এ মেলার আয়োজন করা হয়েছে। মেলায় বিভিন্ন ধরণের পোশাক, নকশীকাঁথা, তাঁতের ও জামদানি শাড়ি, পাটজাত হস্তশিল্প, আধুনিক পদ্ধতিতে উৎপাদিত মধু, খাদ্যজাত সামগ্রীসহ হস্ত ও কুটির শিল্পজাত পণ্যের বিপুল সমারোহ ঘটেছে। মেলা উপলক্ষে জয়নুল আবেদিন প্রদর্শনকক্ষে কারুশিল্পীদের উৎপাদিত পণ্যসামগ্রী নিয়ে চলছে কারুশিল্প প্রদশর্নী।
মেলায় বিভিন্ন ধরণের হস্ত ও কুটির শিল্পপণ্যের ৬০টি স্টল স্থান পেয়েছে। পাঁচ দিনব্যাপী হেমন্ত মেলা ও ত্রৈমাসিক কারুশিল্প প্রদর্শনী ১৭ জানুয়ারি পর্যন্ত চলবে। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৫ টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।
অনুষ্ঠানে বিসিক চেয়ারম্যান কুটির ও হস্তশিল্প খাতের পণ্যের চাহিদা বৃদ্ধির জন্য মেলায় ক্রেতাদের চাহিদানুযায়ী আকর্ষণীয় নতুন নতুন ডিজাইন ও মানসম্পন্ন পণ্যসামগ্রী উৎপাদনের উপর গুরুত্বারোপ করেন। বিসিক দেশব্যাপী ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প খাতের উন্নয়নে দীর্ঘদিন যাবৎ উদ্যোক্তাদের বিভিন্ন ধরনের সেবা-সহায়তা প্রদান করে আসছে। উক্ত খাতের উন্নয়ন ও বিকাশ ঘটিয়ে উৎপাদন ও আয়বৃদ্ধি এবং নতুন নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি করাই বিসিকের অন্যতম লক্ষ্য।
তিনি বলেন, এ লক্ষ্য অর্জনে বিসিক অন্যান্য কাজের পাশাপাশি নকশা কেন্দ্রের মাধ্যমে ব্লক প্রিন্ট, বাটিক প্রিন্ট, স্ক্রিন প্রিন্ট, পুতুল তৈরি, প্যাকেজিং, বাঁশ-বেতের কাজ, পাটজাত হস্তশিল্প, চামড়াজাত পণ্য, ধাতব শিল্প, মৃৎ শিল্প, বুনন শিল্প ও ফ্যাশন ডিজাইন ইত্যাদি ১২টি ট্রেডে এ পর্যন্ত ২৮ হাজার ৪১৫ জন উদ্যোক্তাকে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়েছে। তাছাড়া এ যাবৎ নকশা উদ্ভাবন ও নমুনা বিতরণ ৩৩ হাজার ৪২১টি, মেলা ও প্রদর্শনীর আয়োজন ১৭৩টি, শ্রেষ্ঠ ও দক্ষ কারুশিল্পী পুরস্কার প্রদান ২৮৫ জনকে এবং ত্রৈমাসিক মেলার আয়োজন করা হয়েছে ৬৩টি।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top