logo
news image

হার্ডিঞ্জ ব্রিজে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে শ্রমিকের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঈশ্বরদী (পাবনা)।  ।  
পাবনার ঈশ্বরদীর পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজের ওপরে রঙের কাজ করার সময় অসাবধানতাবশত বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শরিফুল ইসলাম (২৬) নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার (৮ জানুয়ারি) সকালে পাবনার ঈশ্বরদীর পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ এর ৮নং গার্ডারে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত শ্রমিক ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশী ইউনিয়নের চর-রুপপুর গ্রামের চুনু প্রামাণিকের ছেলে।
ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সহকর্মী জাইদুল ইসলাম জানান, সকালে তারা হার্ডিঞ্জ ব্রিজের গার্ডারের ওপর বাঁশের চালা লোহার তার দিয়ে বেঁধে কাজ করতে ছিলেন। এ সময় তারের এক প্রান্ত খুলে ব্রিজের গার্ডারের সঙ্গে উচ্চ ক্ষমতা সম্পন্ন বৈদ্যুতিক তার জড়িয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়। তখন পুরো গার্ডার কেঁপে ওঠে। এ সময় শরিফুলের পুরো শরীর ঝলছে যায়। ব্রিজের ওপর রেললাইনের কাঠের সিলিপাটের ওপর বৈদ্যুতিক আগুনের ফুলকি পড়ে আগুন লেগে যায়।
পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ শহীদুল ইসলাম শহীদ জানান, হার্ডিঞ্জ ব্রিজের ওপর রাজশাহীর রোজলিন ট্রেডার্স এর শামিমুর রহমান রিডার এর ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের শ্রমিকেরা রং করার কাজ করছিল। এ সময় অসাবধানতাবসত বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে শরিফুল ৮ নং গার্ডারের ওপর ছিটকে পড়ে মারাত্মক আহত হয়। এ সময় আশপাশের সহকর্মীরা দ্রুত ফায়ার সার্ভিস ও হার্ডিঞ্জ ব্রিজ পুলিশ ফাঁড়িতে খবর দেয়। খবর পেয়ে ঈশ্বরদী ইপিজেড ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স স্টেশন এর উদ্ধার কর্মীরা তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে উপজেলা
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।
ঈশ্বরদী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. তানজিনা মোস্তফা  জানান, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে হাসপাতালে পৌঁছানোর আগেই তার মৃত্যু হয়।
ঈশ্বরদী থানার অফসার ইনচার্জ (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী  জানান, পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ এর ৮ নং গার্ডার কুষ্টিয়ার পোড়াদহ রেলওয়ে (জিআরপি) থানার নির্ধারিত এলাকা। তাদের অবগত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে পোড়াদহ রেলওয়ে জিআরপি পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।
এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ব্রিজের ওপর কাজ করতে নিরাপত্তার জন্য সেফটি বেল্ট, হেলমেট, জুতা ও গোল্পসের প্রয়োজন থাকলেও ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান থেকে তা সরবরাহ করা হয়নি।
শ্রমিক ও প্রত্যক্ষদর্শীরা অভিযোগ করে বলেন, সেফটির জন্য হ্যান্ড গ্লোভ পরা থাকলে বৈদ্যুতিক শক লাগতো না।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top