logo
news image

নাটোরের চারটি আসনেই জিততে চায় আওয়ামী লীগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, নাটোর।  ।  
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নাটোরের ৪টি আসনেই জিততে চায় আওয়ামী লীগ। বিএনপিকে এক চুলও ছাড় দিতে চায় না বৃহৎ এই সংগঠনটি। ১৯৯৬ এবং ২০০১ সাল পর্যন্ত নাটোরের চারটি আসন বিএনপির দখলে ছিল। তবে ২০০৮সালের নির্বাচনে আসনগুলো পুনরদ্ধার করে আওয়ামী লীগ। এরপর ২০১৪সালেও চারটি আসন তাদের দখলে রয়েছে। তবে ২০১৮সালের এই নির্বাচনও জিততে চায় আওয়ামী লীগ।
নাটোরে জাতীয় সংসদের মোট আসন ৪টি। জাতীয় সংসদীয় আসন নং-৫৮ নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) , জাতীয় সংসদীয় আসন নং-৫৯ নাটোর-২ (নাটোর সদর-নলডাঙ্গা), জাতীয় সংসদীয় আসন নং-৬০ নাটোর-৩ (সিংড়া) ও জাতীয় সংসদীয় আসন নং-৬১ নাটোর-৪ (বড়াইগ্রাম- গুরুদাসপুর)।
আসন ভিত্তিক প্রতিনদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা হচ্ছেন, নাটোর-১ (লালপুর-বাগাতিপাড়া) আসনে মোট প্রার্থী ৬ জন। তবে মূল প্রতিদ্বদ্বীতা হওয়ার কথা আওয়ামী লীগ প্রার্থী শহিদুল ইসলাম বকুল (নৌকা প্রতীক) ও বিএনপি প্রার্থী কামরুন নাহার শিরিন (সাবেক প্রতিমন্ত্রী ফজলুর রহমানের সহধর্মিনী) ধানের শীষ প্রতীকের মধ্যে। আসনটিতে প্রথম থেকেই আওয়ামী লীগ প্রার্থী শহিদুল ইসলাম বকুল নৌকা প্রতীকের পক্ষে যথেষ্ট প্রচারণা চালিয়েছেন। এলাকায় তার সমর্থনও রয়েছে বেশ। অপরদিকে ধানের শীষের প্রার্থী সাবেক প্রতিমন্ত্রী ফজলুর রহমানের সহধর্মিনী কামরুন নাহার শিরিন অপর প্রার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম বিমলের বিরুদ্ধে মাত্র কদিন আগে উচ্চ আদালতের রায় পান। ফলে তিনি প্রচারণার মাঠে নামতেই পারেননি। ফলে এ আসনটিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী শহিদুল ইসলাম বকুল নৌকা প্রতীক নিয়ে বেশ শক্ত অবস্থানেই রয়েছেন। জয়লাভের সম্ভাবনা তারই।
নাটোর-২ (নাটোর সদর ও নলডাঙ্গা) আসনে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মোট প্রার্থী ৪ জন। এর মধ্যে নির্বাচনে প্রতিদ্বদ্বন্দ্বিতা হবে আওয়ামী লীগ প্রার্থী শফিকুল ইসলাম শিমুল এমপি, নৌকা প্রতীক ও বিএনপি প্রার্থী-সাবিনা ইয়াসমিন ছবি (সাবেক উপমন্ত্রী রুহুল কুদ্দুস তালুকদারের সহধর্মিনী) ধানের শীষ প্রতীক। এ আসনে প্রচারণার শেষ সময় পর্যন্ত আওয়ামী লীগ প্রার্থী শফিকুল ইসলাম শিমুল এমপি উৎসব মুখর পরিবেশে প্রচারণা চালিয়ে গেছেন। তবে নির্বাচনী প্রচারণার মাঠে বিএনপির সরব অবস্থান লক্ষ্য করা যায়নি। তারা বলেছেন তাদের নিরাপত্তার অভাব রয়েছে। তবুও তাদের যে ভোট রয়েছে যদি নিরাপদে ভোটররা ভোট দিতে পারে তাহ’লে তারা জয়লাভ করবেন। এ আসনেও নৌকা প্রতীকেরই জয়লাভের সম্ভাবনা।
নাটোর-৩ (সিংড়া) আসনে মোট প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ৫ জন। এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়েছেন প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। পলক তার এলাকায় তার নেতা-কর্মীদের সংগঠিত করে এক চেটিয়া নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়েছেন। তার প্রভাবও রয়েছে যথেষ্ঠ। তার সময়ে এলাকার উন্নয়নও হয়েছে যথেষ্ঠ। ফলে তিনি তার শক্ত অবস্থান তৈরী করতে পেরেছেন। এ আসনে বিএনপি প্রার্থী দাউদার মাহমুদ ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তিনি ভোটের মাঠে একেবারেই নতুন। ফলে এ আসনটিতে নৌকা প্রতীক নিয়ে পালে হাওয়া লাগিয়ে প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক নির্বচনী বৈতরণী সহজেই পার হয়ে যাবেন।
নাটোর-৪ (বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুর) আসনে মোট প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ৫ জন। এ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হয়েছেন বারবার নির্বাচিত সংসদ সদস্য হয়েছেন আব্দুল কুদ্দুস এমপি। যার নির্বাচনী কারিসমা রয়েছে যথেষ্ঠ। তিনিই এ আসনে নৌকার কান্ডারী। বৈঠা তার হাতে। তিনি শক্ত হাতেই বৈঠা ধরেছেন। অপরদিকে এ আসনে তার প্রতিদ্ব›দ্বী বিএনপির আব্দুল আজিজ ধানের শীষ নিয়ে নির্বাচনে প্রার্থী হন। কিন্তু তিনি উপজেলা চেয়ারম্যান থাকায় উচ্চ আদালতে তার প্রার্থীতা বাতিল হয়ে যায়। ফলে অনায়াসেই আব্দুল কুদ্দুস এমপি এবারেও নৌকার পালে হাওয়া লাগিয়ে নির্বাচনী বৈতরণী পার হয়ে যাবেন।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য