logo
news image

বিভেদ ভুলে দলের সকলকে নিয়ে ভোট করতে চাই-আওয়ামী লীগ প্রার্থী রমজান

বিভেদ ভুলে দলের সকলকে নিয়ে ভোট করতে চাই-আওয়ামী লীগ প্রার্থী রমজান
নিজস্ব প্রতিবেদক, লালপুর (নাটোর)।  ।  
'গ্রুপিং বা বিভেদ নয়, দলের সকলকে নিয়ে ভোট করতে চাই। জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা প্রতীক দিয়েছেন দলীয় বিভেদ, মারামারি, হানাহানি বা গ্রুপিংয়ের জন্য নয়। দলের সকল পর‌্যায়ের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের সাথে নিয়ে নৌকা মার্কায় বিজয়ী হয়ে আসনটি নেত্রীকে উপহার দিতে চাই। ' রোববার (৩ ডিসেম্বর) লালপুরস্থ নির্বাচনী অফিসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে নাটোর-১ আসনের আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কর্নেল (অবঃ) রমজান আলী সরকার লিখিত বক্তব্যে এ কথা বলেন।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ কৃষক লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুল হক আতিক, কামরাঙ্গীর চর উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি আলহাজ্ব আনিছুর রহমান, আওয়ামী লীগ নেতা মোর্শেদ আলম, তোফায়েল আহমেদ টিটু, লালপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মিজানুর রহমান মিন্টু প্রমুখ।
বক্তব্যে তিনি আরো বলেন, আমরা সহিংসতা, হানাহানিতে বিশ্বাস করি না। আমরা শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক ধারায় রাজনীতি করতে চাই। জনগনের ভোটে ক্ষমতায় বসতে চাই। অথচ দেশের একটি রাজনৈতিক দল যুদ্ধাপরাধী ও দেশদ্রোহী একটি পক্ষকে সাথে নিয়ে নির্বাচন বানচালের অপচেষ্টা চালাচ্ছে। তাদের বোমা বাজি, হত্যাযজ্ঞ, সহিংসতা সৃষ্টি, নিরীহ মানুষকে হত্যা দেশবাসী দেখেছে। দেশের জনগন তাদের ভোট দিতে চায় না, তাই তারা ভোট যুদ্ধে পরাজয়ের ভয়ে আবোল-তাবোল বক্তব্য শুরু করেছে।
সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরা হলো:
সংবাদ সম্মেলন বক্তব্য
বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনিত প্রার্থী, ৫৮ নাটোর-১ লালপুর-বাগাতিপাড়া
কর্নেল অব: মোঃ রমজান আলী সরকার, সম্মানিত উপদেষ্টা বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট
স্থান: নির্বাচনী অফিস, লালপুর, নাটোর।  তারিখ: ০৩ ডিসেম্বর ২০১৮, রোববার
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম
প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ,
আসসালামু আলাইকুম।
শীতের এই কুয়াশা মাখা মিষ্টি সকালে আমি আপনাদের স্বাগত: জানাচ্ছি।
আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আমি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনিত একজন প্রার্থী। আমি লিখিত বক্তব্যের শুরুতেই শ্রদ্ধাভরে স্মরন করতে চাই স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। স্মরন করতে চাই জাতীয় চার নেতা যাদেরকে কারা অভ্যন্তরে শ্বাসক চক্র হত্যা করেছিলো।আরো স্মরন করতে চাই মহান মুক্তিযুদ্ধে ও ভাষা আন্দোলনে নিহত সকল শহীদদের এবং বিশেষ ভাবে স্মরন করতে চাই আমাদের এ এলাকার কৃতি সন্তান, আমাদের সকলের আদর্শের নেতা শহীদ জননেতা মমতাজ উদ্দিনকে।
আমি বক্তব্যের শুরুতেই কৃতজ্ঞ চিত্তে স্মরন করতে চাই বঙ্গবন্ধু কন্যা, বাংলাদেশের সফল প্রধানমন্ত্রী, মাদার অফ হিউম্যানিটি, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর সফল সভানেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে। যিনি আমার এলাকার অসহায়, নিপীড়ীত, সুবিধা বঞ্চিত মানুষের পাশে দাড়ানোর জন্য ও এ এলাকায় তার উন্নয়নের ধারাকে আরো ত্বরান্বিত করার লক্ষ্যে আমাকে ৫৮ নাটোর-১ লালপুর-বাগাতিপাড়া আসনে নৌকা প্রতিকের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছেন।
সাংবাদিক বন্ধুগণ,
আগামী ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ করতে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নির্বাচন কমিশন ইতিমধ্যে গ্রহন করেছে। উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে, দেশকে মধ্যম আয়ের দেশ খেকে উন্নত দেশে পরিণত করতে ও গনতান্ত্রিক ধারাকে আরো সু-সংহত করতে এ নির্বাচনে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এর ক্ষমতার মসনদে আবারও থাকা প্রয়োজন বলে আমি বিশ্বাস করি। আশা করি সমাজের বিবেকবান ব্যক্তি ও সু-নাগরিক হিসেবে আপনিও আমার এ কথাকে সমর্থন করবেন।
প্রিয় কলম সৈনিক বৃন্দ,
আমরা সহিংসতা, হানাহানিতে বিশ্বাস করি না। আমরা শান্তিপূর্ণ ও গণতান্ত্রিক ধারায় রাজনীতি করতে চাই। জনগনের ভোটে ক্ষমতায় বসতে চাই। অথচ দেশের একটি রাজনৈতিক দল যুদ্ধাপরাধী ও দেশদ্রোহী একটি পক্ষকে সাথে নিয়ে নির্বাচন বানচালের অপচেষ্টা চালাচ্ছে। তাদের বোমা বাজি, হত্যাযজ্ঞ, সহিংসতা সৃষ্টি, নিরীহ মানুষকে হত্যা দেশবাসী দেখেছে। তাই তারা ভোট যুদ্ধে পরাজয়ের ভয়ে আবোল-তাবোল বক্তব্য শুরু করেছে। আপনাদের হাতে রয়েছে কলম, আপনারা সচেষ্ট থাকলে এ সকল অপশক্তি দেশের কোথাও মাথা তোলার সাহস পাবে না। আপনাদের কাছে জননেত্রী শেখ হাসিনার আহবান জানাতে চাই, দেশের একজন বিবেকবান ব্যক্তি হিসেবে উন্নয়ন কর্মকান্ডের প্রতি সহযোগীতা করুন ও যে সকল ব্যক্তি উন্নয়ন কার্যতক্রমকে বাধা গ্রস্থ করতে চায় তাদেরকে চিহ্নিত করে প্রশাসনকে সাহায্য করুন।
উপস্থিত সাংবাদিকবৃন্দ,
আমাকে জননেত্রী শেখ হাসিনা নৌকা প্রতীক দিয়ে পাঠিয়েছেন। কারো সাথে হানাহানি, মারামারি বা গ্রুপিং করার জন্য নয়। এ এলাকার আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতা-কর্মী ও সমর্থককে আমার প্রয়োজন। জননেত্রী শেখ হাসিনাকে এ আসনটি উপহার দিতে এর কোন বিকল্প নেই। দলের সাংগঠনিক নিয়ম-শৃঙ্খলা মেনে, দলের প্রতিটি নেতাকর্মীকে সাথে নিয়ে ভোটের মাধ্যমে জয়লাভ করতে চাই। সকল পর্যাৃয়ের নেতৃবৃন্দকে এক প্লাটফর্মে নিয়ে আসার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছি। সকল ভেদাভেদ, হিংসা, বিদ্বেষ ভুলে দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মী ও সমর্থকবৃন্দ সর্বোপরী আমার এলাকার ভোটারগন আমার পাশে থাকবেন ইনশাআল্লাহ্।
প্রিয় সাংবাদিকবৃন্দ,
আগামী ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনে অংশগ্রহনের জন্য আমি ইতিমধ্যেই প্রচার-প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছি। প্রতিদিন বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বাজার, সড়ক, মোড় ও গ্রামে গন-সংযোগ অব্যাহত আছে। আপনাদের মূল্যবান লেখনির মাধ্যমে আমার প্রচার কর্মকান্ড তুলে ধরবেন এ প্রত্যাশা করি।
আপনাদের সকলকে ধন্যবাদ।  জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top