logo
news image

রাষ্ট্রপতি সম্মতি দিলে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা ৪ নভেম্বর

নিজস্ব প্রতিবদেক, ঢাকা।  ।  
রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাতের পর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আপাতত ইসি নির্বাচনের ভোটগ্রহণের তারিখ চূড়ান্ত করা ছাড়াই একটি খসড়া একটি তফসিল তৈরি করেছে। বিষয়টি নিয়ে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আলোচনার পর ভোট গ্রহণের দিন চূড়ান্ত করা হবে।
ইসির একাধিক শীর্ষ কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার (২৫ অক্টোবর) এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
ইসির নির্বাচন শাখা সূত্র জানায়, এবার তফসিল ঘোষণার পর কমপক্ষে ৪৫ দিন হাতে রেখে নির্বাচনের ভোট গ্রহণের তারিখ নির্ধারণ করার কাজ চলছে। এ কারণে প্রাথমিক ভাবে ১৮ ডিসেম্বর থেকে ২০ ডিসেম্বরের যেকোনো একদিন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ হতে পারে। তবে এই তিন দিনের মধ্যে না হলে ভোটগ্রহণের তারিখ ২৩ ডিসেম্বর হবে। কেননা ২১ ও ২২ ডিসেম্বর সাপ্তাহিক ছুটির দিন (শুক্র ও শনিবার)। ওই কর্মকর্তারা বলছেন, কমিশন তফসিল নিয়ে যে ধরনের প্রস্তুতি তাতে ২০ ডিসেম্বরের মধ্যেই ভোট হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।
বাংলাদেশের অতীতের নির্বাচনগুলোর তফসিল ঘোষণার পর ভোটগ্রহণ পর্যন্ত সর্বনিম্ন ৪২ দিন রাখা হয়েছে। তবে তফসিল থেকে ভোটগ্রহণ পর্যন্ত সময় রাখার ব্যাপারে নির্দিষ্ট কোনো নিয়ম নেই। নির্বাচন কমিশনই ‘যৌক্তিক সময়’ নির্ধারণ করে।
রেওয়াজ অনুযায়ী জাতীয় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও নির্বাচন কমিশনাররা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন এবং নির্বাচনের সম্ভাব্য সময়সূচি সম্পর্কে তাঁকে অবহিত করেন।
ইসি সচিবালয় সূত্র জানায়, সিইসি কে এম নুরুল হুদা ও চার কমিশনার মাহবুব তালুকদার, রফিকুল ইসলাম, শাহাদাত হোসেন ও কবিতা খানম ১ নভেম্বর বৃহস্পতিবার রাষ্টপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। এরপর শুক্রবার ও শনিবার থাকবে সাপ্তাহিক ছুটি। ৪ নভেম্বর রোববার কমিশনের বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে এবং বৈঠকের পরপরই নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হতে পারে। তবে ইসি সূত্র বলছে, তফসিল ৬ নভেম্বরের মধ্যেই হবে। এর মধ্যে ৪ নভেম্বর হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি, তবে তা চূড়ান্ত নয়।
এ বিষয় বৃহস্পতিবার ইসি সচিবালয়ের সচিব সাংবাদিকদের বলেন, তফসিল কবে ঘোষণা হবে বা কবে ভোট গ্রহণ হবে, এসব বিষয় নিয়ে এখনো কোনো আলোচনা হয়নি। ১ নভেম্বর বিকেল চারটায় কমিশন রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করবে। তারপর নির্বাচনের তফসিল ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
ইসি সচিবালয়ের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, ৪ নভেম্বর নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে কি না, সেটা অনেকাংশেই রাষ্ট্রপতির সঙ্গে আলোচনার বিষয়ের ওপর নির্ভর করছে। ইসির সম্ভাব্য প্রস্তাবে কোনো পরিবর্তন না আসলে ৪ নভেম্বরই তফসিল ঘোষণা করা হবে। সে ক্ষেত্রে ১ নভেম্বর কমিশন সভার নোটিশ জারি করা হবে।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top