logo
news image

জনগণই রাষ্ট্রক্ষমতার প্রকৃত উৎস-রাষ্ট্রপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক, কিশোরগঞ্জ।  ।  
রাষ্ট্রপতি এম আবদুল হামিদ সাধারণ জনগণের প্রতি সম্মান দেখাতে এবং তাদের সঙ্গে ভাল ব্যবহার করতে জনপ্রতিনিধিদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, জনগণই রাষ্ট্রক্ষমতার প্রকৃত উৎস। রাষ্ট্রপতি তাঁর নিজ শহর কিশোরগঞ্জে তিনদিনের সফর কর্মসূচির প্রথম দিন সোমবার (৮ অক্টোবর) এখানে গুরুদয়াল কলেজ মাঠে এক গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন। তিনি নির্বাচিত নেতাদের উদ্দেশে বলেন, জনগণকে সম্মান দেখাতে হবে এবং তাদের সঙ্গে ভাল ব্যবহার করতে হবে।
আবদুল হামিদ গত ২৪ এপ্রিল দ্বিতীয় দফায় দেশের রাষ্ট্রপতি হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পর জেলা শহরে গুরু দয়াল কলেজে এটি তাঁর প্রথম সফর। এ উপলক্ষে জিলা সংবর্ধনা কমিটি কলেজ খেলার মাঠে এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
রাষ্ট্রপতি দেশ এবং দেশের জনগণের বৃহত্তর স্বার্থে আগামী সাধারন নির্বাচনে ভাল প্রার্থীকে দলের মনোনয়ন দিতে রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি আহ্বান জানান। বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ এবং সাবেক স্পিকার আবদুল হামিদ দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির উল্লেখ করে দেশের রাজনীতিতে গুণগতমান নিশ্চিত করতে আগামী নির্বাচনে প্রকৃত রাজনীতিবিদদের অগ্রাধিকার দেয়ার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
রাষ্ট্রপতি দেশের সাবির্ক উন্নয়নকে এগিয়ে নিয়ে যেতে যে দল কাজ করবে, আগামী নির্বাচনে সেই দলকে ভোট দিতে ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, রাষ্ট্রপতির চেয়ারে বসে আমি কোন রাজনৈতিক বক্তব্য দিতে পারি না। তবে কাজের বিনিময়ে খাদ্যসহ সকল উন্নয়ন প্রকল্পের নামে সরকারি বরাদ্দ যেন কেউ আত্মসাৎ করতে না পারে, এমন লোকদের নির্বাচিত করতে তিনি ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানান।
আবদুল হামিদ তাঁর ছাত্র জীবনের পর থেকে রাজনৈতিক জীবনের বিভিন্ন অধ্যায়ের উল্লেখ করে বলেন, এই বর্তমান অবস্থায় আসতে তাকে অনেক সমস্যা মোকাবেলা করতে হয়েছে। ইতোমধ্যে তিনি তাঁর অনেক ঘনিষ্ঠজন, বন্ধু ও রাজনৈতিক সহকর্মীদের হারিয়েছেন। তিনি তাদের অবদানের কথা স্মরণ করে তাদের প্রতি শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন এবং তাদের আত্মার শান্তি কামনা করেন। তিনি জনগণের কাছে দোয়া চেয়ে বলেন, আমার বাকি জীবন দেশের ও জনগণের কল্যাণে ব্যয় করতে চাই।
রাষ্ট্রপতি স্থানীয় জনগণের বিভিন্ন দাবির জবাবে কিশোরগঞ্জে একটি পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন এবং সেখানে নির্বিঘœ রেল যোগাযোগ নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ারও আশ্বাস প্রদান করেন।
অনুষ্ঠানে প্রোকৌশলী রেজওয়ান আহমেদ তৌফিক এমপি, আফজাল হোসেন এমপি, সোহরাব উদ্দিন এমপি, দিলারা বেগম আসমা এমপি, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট কামরুল আহসান শাহজাহান, সাধারণ সম্পাদক এম এ আফজাল, রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজের পরিচালক রাসেল আহমেদ তুহিন ও কিশোরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মাহাবুব পারভেজ অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। কিশোরগঞ্জ জিলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট মো. জিল্লুর রহমান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন।
পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
রাতে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষের প্রতিনিধিদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ দেশের সার্বিক উন্নয়ন নিশ্চিতকরণে সততা ও আন্তরিকতার সঙ্গে একযোগে কাজ করতে রাজনৈতিক নেতা, মুক্তিযোদ্ধা, পেশাজীবী, নারী নেত্রী ও সরকারি কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, উন্নয়ন একটি চিরায়ত প্রক্রিয়া। দেশের চলমান উন্নয়ন প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখতে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার কোন বিকল্প নেই।
রাষ্ট্রপতি তিন দিনের সফরে বর্তমানে তার নিজ জেলায় অবস্থান করছেন। সফরে প্রথম দিনে তিনি আজ কিশোরগঞ্জ সার্কিট হাউজ মিলনায়তনে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের স্থানীয় নেতা, পেশাজীবী সংগঠনের প্রতিনিধি, মুক্তিযোদ্ধা, নারী নেত্রী এবং সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।
রাষ্ট্র প্রধান সর্বোচ্চ আন্তরিকতা ও সততার সঙ্গে কাজ করতে সরকারি কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানান, যাতে জনগণের অর্থে পরিচালিত সকল প্রকল্প যথাযথভাবে বাস্তবায়িত হয়।
উন্নয়ন কর্মকান্ডকে সফল করতে তিনি সক্রিয় ও ইতিবাচক ভূমিকার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
মুক্তিযোদ্ধাদের সঙ্গে আলাপকালে ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক আবদুল হামিদ বলেন, বর্তমান সরকার এ মাটির জন্য ত্যাগ স্বীকারকারী বীরদের কল্যাণে প্রয়োজনীয় সকল সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে।
তিনি বলেন, দেশের স্বাধীনতা অর্জনে জাতির সাহসী সন্তানদের অবদান জনগণ চিরকাল স্মরণ করবে। 

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top