logo
news image

লালপুরে ছাত্রীর আত্মহত্যার ঘটনায় সংঘর্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক।  ।  
নাটোরের লালপুরে সোমবার গলায় ফাঁস দিয়ে রুপালী খাতুন (১৫) নামের ১০ম শ্রেনীর এক ছাত্রী আত্মহত্যা করেছে। সে উপজেলার ওয়ালিয়া সেন্টারপাড়া গ্রামের রুবেল হোসেনের মেয়ে এবং ওয়ালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেনীর  ছাত্রী। এ ঘটনায় বিচারের দাবিতে সন্ধার পরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে শিক্ষার্থীরা। রাতে নিহতের পরিবারের পক্ষের সাথে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।  এতে উভয় পক্ষের কমপক্ষে ৬ জন আহত হয়।
নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, সোমবার (১ অক্টোবর) রুপালী যথারিতি নির্বাচনী পরীক্ষা দেয়ার জন্য সকালে ওই বিদ্যালয়ে যায়। প্রথম দিনের ইংরেজী ১ম পত্র পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে  নকল করার দায়ে দায়িত্বরত শিক্ষক তাকে বহিস্কার করে। পরে বেলা আড়াইটার দিকে নিজ ঘরের তীরের সাথে গলায় উড়না দিয়ে ফাঁস দেয় রুপালী। পরিবারের সদস্যরা বিষয়টি জানতে পেরে রুপালীকে  উদ্ধার করে স্থানীয় একটি বে-সরকারী হাসপাতালে নিয়ে গেলে কতব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত্য ঘোষনা করেন । খবর পেয়ে পুলিশ মৃত্যদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন।
এ বিষয়ে ওয়ালিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ওমর আলী জানান, রুপালী ১০ম শ্রেনীর ইংরেজী বিষয়ের পরীক্ষা দেয়ার সময় নকল করছিল, এ সময় ওই কক্ষে থাকা শিক্ষক রুপালীর নিকট থেকে নকল জব্দ করে। ওয়ালিয়া বাজারের একাধিক প্রতক্ষ্যদর্শীরা (নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক) জানান, সন্ধার পর ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা প্রধান শিক্ষকের বিরদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করলে এলাকায় উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। তারা আরো জানান, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিষয়টি সুরাহার চেষ্টা করলে রাতে ওই দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে দুই পক্ষেরি তিন জন করে মোট ছয় জন আহত হয়। আহতরা হলো বিপ্লব, পলাশ, শিবলী, শাকিল,তাবিব ও সুফিয়ান। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেকে ও স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।
এ বিষয়ে ওয়ালিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ নজরুল ইসলাম সংঘর্ষের বিষয়টি স্বীকার করে জানান, এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।
লালপুর থানার ওসি নজরুল ইসলাম জুযেল জানান, এ বিষয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা  হয়েছে। 

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top