logo
news image

শর্মার বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা

কক্সবাজার সদর-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলের বিরুদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ করায় কক্সবাজারের রামু উপজেলার স্কুল শিক্ষক সুনিল কুমার শর্মা ও ছেলে সুজন কুমার শর্মার বিরুদ্ধে ১০০ কোটি টাকার মানহানি মামলা হয়েছে। মঙ্গলবার কক্সবাজার সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট একরামুল হুদা বাদী হয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ১-এ মামলাটি দায়ের করেন। বিজ্ঞ আদালত মামলাটি গ্রহণ করে জুডিশিয়াল তদন্তের নির্দেশ দেন বলে জানা গেছে।

মামলার বিররণীতে জানা যায়, গত ১৪ জানুয়ারি দুপুরে স্থানীয় সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালাস্থ বিকেএসপি মাঠ ভরাট কাজের উদ্বোধন শেষে পরিদর্শন করছিলেন। এ সময় তার সঙ্গে দেখা হয় রামুর ফতেখাঁরকুল পূর্ব মেরংলোয়ারের স্কুল শিক্ষক সুনিল কুমার শর্মার। সেখানে সুনিল কুমার শর্মা ও তার ছেলে সুজন কুমার শর্মার কৃতকর্মের বিষয়কে কেন্দ্র করে এমপি কমলকে কটূক্তি করলে উভয়পক্ষের মধ্যে সামান্য কথাকাটাকাটি হয়। পরে সুনিল কুমার শর্মা সেখান থেকে চলে যান। পরবর্তীতে সুনিল কুমার শর্মা ও তার ছেলে সুজন কুমার শর্মা উভয়ই যোগসাজশে এমপি কমলের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের সঙ্গে হাত মিলিয়ে সাংবাদিকদের মিথ্যা ও ভুল তথ্য দিয়ে বিভিন্ন জাতীয় ও স্থানীয় পত্রিকায় ‘সাংসদ নিজের শিক্ষককে গলাধাক্কা দিলেন’সহ বিভিন্ন শিরোনামে মিথ্যা ও মানহানিকর সংবাদ পরিবেশন করান শিক্ষক সুনিল শর্মা। ফৌজদারি দরখাস্তে আরও উল্লেখ করা হয়েছে সুনিল কুমার শর্মা কোনোকালেই এমপি কমলের শিক্ষক ছিলেন না। পত্রিকায় গৃহশিক্ষকের যে কথা উল্লেখ করা হয়েছে তাও মিথ্যা ও বানোয়াট বলে উল্লেখ করা হয়।

এ মামলার বাদী অ্যাডভোকেট একরামুল হুদা জানান, সুনিল কুমার শর্মা ও তার ছেলে সুজন কুমার শর্মা পূর্বপরিকল্পিতভাবে এমপি কমলের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের সঙ্গে হাত মিলিয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচনের পূর্বেই এমপির সুনাম ও মানহানি করার লক্ষ্যে এই সংবাদ প্রকাশ করেছেন। 

এ ব্যাপারে সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল জানান, আমাকে নিয়ে যে সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছিলো তা সম্পূর্ণ বানোয়াট। আমার জনপ্রিয়তাকে খাটো করতে একটা মহল এই কাজটি করিয়েছে। বিগত ৪ বছর সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে কাউকে অসম্মান করিনি। 

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top