logo
news image

লালপুরে নির্বাচনকে সামনে রেখে শিক্ষক-কর্মচারীদের রাজনৈতিক তথ্য সংগ্রহ করছে প্রশাসন

সারা দেশের ন্যায় নাটোরের লালপুরে সরকারি বেসরকারী শিক্ষক ও কর্মচারীদের রাজনৈতিক তথ্য সংগ্রহ করছে   গোয়েন্দা সংস্থা সহ আইন প্রয়োগকারী সংস্থা।  জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে সরকারি বেসরকারী শিক্ষক -কর্মচারীদের রাজনৈতিক পরিচয় ও  তাদের পরিবারের সদস্যদের বিষয়েও তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে  বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

গত আগস্ট মাস থেকেই এই তৎপরতা শুরু হয়েছে। যদিও ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের তথ্য সংগ্রহের জন্য কোনো চিঠি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে দেয়নি নির্বাচন কমিশন। এমনকি ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের রাজনৈতিক পরিচয় কমিশনের জানার প্রয়োজন নেই বলে নির্বাচন কমিশনের সচিব জানিয়েছেন। তথ্য সংগ্রহের বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আইন প্রয়োগকারী সংস্থার একজন কর্মকর্তা জানান, এটি নিয়মিত কাজের অংশ। তবে সম্প্রতি উচ্চপর্যায়ের নির্দেশে এসব তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। চলতি মাসেই তথ্য সংগ্রহ সম্পন্ন হবে বলে জানান তিনি।

সংশ্লিষ্ট থানার মাধ্যমে সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষকদের রাজনৈতিক তথ্য সংগ্রহ করছে সরকার। বিষয়টি নিয়ে এক ধরনের উদ্বেগের মধ্যে আছে শিক্ষকরা। তারা বলছেন, আমার তথ্য বা রাজনৈতিক পরিচয় জানতে পারে। কিন্তু আমার পরিবারের মধ্যে কেউ রাজনীতি করে না কি, করলে কোন দল করে এসব তথ্য চাওয়া হচ্ছে সরকারের বিভিন্ন সংস্থার মাধ্যমে। এতে এক ধরনের আতঙ্ক বা শঙ্কা কাজ করছে শিক্ষকদের মধ্যে।একাধিক শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, যেসব শিক্ষকদের ব্যাপার সন্দেহ হচ্ছে তাদের তথ্য বেশি নেয়া হচ্ছে। তথ্য সংগ্রহের সময় সংশ্লিষ্ট শিক্ষকের পারিবারিক তথ্য যেমন পিতা মাতা, ভাইবোন, চাচা, মামা, শ্বশুর, শাশুড়ি, শ্যালক, স্বামী,  দেবর, ননদ ও ভাশুরের তথ্য। সবার তথ্য নেয়ায় শিক্ষকরা এক ধরনের আতঙ্কের মধ্যে আছেন। কারণ ইতিপূর্বে কারও তথ্য এভাবে নেয়া হয়নি। শিক্ষকরা বলেন, চাকরিতে প্রবেশের সময় পুলিশ  ভেরিফিকেশনে চাকরির প্রার্থীর বিরুদ্ধে কোনো  ফৌজদারি অপরাধের অভিযোগ বা মামলা বা রাষ্ট্রবিরোধী কার্যকলাপের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ আছে কি না তা দেখা হয়। কিন্তু এবার পারিবারিক তথ্য বিশেষ করে রাজনৈতিক তথ্য সংগ্রহে তারা কিছুটা আতঙ্কে আছেন। এ ব্যাপারে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. এএফএম মনজুর কাদের বলেন, শিক্ষকদের এ ধরনের তথ্য সংগ্রহের বিষয়টি আমার জানা নেই। আর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তাও এ বিষয়ে কিছু জানেন না বলে জানান। সূত্রঃ মানবজমিন, দৈনিক শিক্ষা।

এম ইসলাম,১৮/০৯/২০১৮,৪০১৭৮১

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top