logo
news image

বিমসটেক সম্মেলনে যোগ দিতে প্রধানমন্ত্রীর ঢাকা ত্যাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক।  ।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৃহস্পতিবার (৩০ আগস্ট) সকালে সামিট অব দ্যা বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টিসেক্টোরাল টেকনিক্যাল এন্ড ইকোনমিক কো-অপারেশন (বিমসটেক)-এর ৪র্থ সম্মেলনে যোগ দিতে দু’দিনের এক সরকারি সফরে নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছেন।
কাঠমান্ডুতে বিকেলে ৭টি সদস্য রাষ্ট্রের সরকার প্রধানদের নিয়ে এই সম্মেলন শুরু হচ্ছে।
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট প্রধানমন্ত্রী এবং তাঁর সফরসঙ্গীদের নিয়ে সকাল ৮টা ৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করে।
অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল এবং জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আসম ফিরোজ, ডিপ্লোমেটিক কোরের ডিন, তিন বাহিনীর প্রধানগণ এবং পদস্থ সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ এ সময় বিমানবন্দরে উপস্থিত ছিলেন।
নেপালের স্থানীয় সময় সকাল ৯টা ১৫ মিনিটে বিমানটির নেপালের ত্রিভূবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে।
সম্মেলনের ফাঁকে শেখ হাসিনা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, নেপালের প্রধানমন্ত্রী কেপি শার্মা ওলী এবং ভুটানের প্রধান উপদেষ্টা (অন্তবর্তীকালীন সরকার প্রধান) দাশো সেরিং ওয়াংচুকের সঙ্গে বৈঠকের কথা রয়েছে।
বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী এবং বিমসটেক সম্মেলনে যোগদানকারী নেতৃবৃন্দ নেপালের রাষ্ট্রপতির বাসভবন শীতল নিবাসে নেপালের রাষ্ট্রপতি বিদ্যা দেবী ভান্ডারীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন।
সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা, আঞ্চলিক যোগাযোগ উন্নয়ন এবং ব্যবসা-বাণিজের উন্নয়নের বিষয়টি সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী দক্ষিণ ও দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোর নেতৃবৃন্দের অলোচনার মূল বিষয়বস্তু হবে বলে মনে করা হচ্ছে।
প্রধানমন্ত্রী শুক্রবার অপরাহ্নে দেশে ফিরবেন।
এই উপ-আঞ্চলিক সংস্থাটি ১৯৯৭ সালের ৬ জুন ব্যাংকক ঘোষণার মধ্যদিয়ে গঠিত হয়। যার সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ৫টি দক্ষিণ এশিয়ার, যেগুলো হচ্ছে- বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, নেপাল, শ্রীলংকা এবং অন্য দু’টি দেশ দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার মিয়ানমার এবং থাইল্যান্ড।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top