logo
news image

বাইকের যত্ন প্রতিদিন

প্রাপ্তি প্রসঙ্গ ডেস্ক।  ।  
দ্রুত সময় গন্তব্যে পৌঁছানোর জন্য মোটরবাইকের বিকল্প নেই। তাই ব্যস্ত এ শহরে বাহন হিসেবে দিন দিন বাড়ছে বাইকের ব্যবহার। বিশেষ করে তরুণদের কাছে পছন্দের প্রথম বাহন মোটরবাইক। যাঁরা নিয়মিত বাইক চালান, তাঁদের কাছে বাইকের যত্ন নেওয়াটাও জরুরি। ধুলাবালি আর ময়লা-আবর্জনা বাইকের জন্য বেশ ক্ষতিকর। তাই ভালো রাখার জন্য নিয়মিত বাইক পরিষ্কার করতে হবে। না হলে বাইকের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ নষ্ট হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।
যেভাবে যত্ন নেবেন
এই সময়টা ধুলাবালির সঙ্গে রাস্তায় কাদা-পানিও কম থাকে না। বাইকের বিভিন্ন জায়গায় ধুলাবালি আটকে যায়, কাদা শুকিয়ে লেগে থাকে। এসব কারণে বাইকের ইঞ্জিনের ক্ষতি হয় বেশি। উত্তরা সার্ভিস সেন্টার লিমিটেডের সহকারী ব্যবস্থাপক মো. আবদুল ওয়াদুদ বাইকের যত্ন নেওয়া সম্পর্কে বিভিন্ন পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বললেন, ‘ধুলাবালি আর ময়লা-আবর্জনা জমে গেলে মোটরবাইক সাধারণত পানি দিয়ে পরিষ্কার করা উচিত। পানির সঙ্গে শ্যাম্পু মিলিয়েও পরিষ্কার করা যায়। বাইক পরিষ্কার করার সময় এমন জায়গা বেছে নেবেন, যাতে বাইকে মাটি না লাগে। ডবল স্ট্যান্ড করে পরিষ্কার করলে বাইকের সব অংশ সুন্দরভাবে ধোয়ামোছা করা যায়।
বাইকে মূলত দুই ধরনের যন্ত্রাংশ রয়েছে—হার্ড ও সফট। দুই ধরনের যন্ত্রাংশ দুইভাবে পরিষ্কার করা উচিত। বাইকের যন্ত্রাংশগুলো এমন কিছু দিয়ে পরিষ্কার করা উচিত না, যাতে ওই উপকরণটির ঘষায় বাইকে দাগ (স্ক্র্যাচ) পড়ে যায়। এক টুকরা নরম ছেঁড়া কাপড় দিয়ে আলতোভাবে বাইক পরিষ্কার করতে পারেন। বাইকে এমন অনেক জায়গা আছে, যেখানে হাত পৌঁছায় না। সেসব জায়গা পরিষ্কার করার জন্য টুথব্রাশ ব্যবহার করুন। বাইকের চাকা পরিষ্কার করার জন্য লম্বা হাতলযুক্ত ব্রাশ ব্যবহার করতে পারেন। মোটরবাইক পানি দিয়ে ধুয়ে পরিষ্কার করার পর সুন্দরভাবে মুছে ফেলুন। এরপর আলো-বাতাস আছে এমন স্থানে রাখুন। বাইকের ফুয়েল লাইনের (তেলের নল) কোথাও ফাটা আছে কি না, তা চেক করুন। সামনের এবং পেছনের ব্রেক ঠিকমতো কাজ করছে কি না, তা নিয়মিত পরীক্ষা করা উচিত। ঠিকমতো কাজ না করলে দুটো ব্রেকের মধ্যে সমন্বয় করুন। মোটরবাইক পরিষ্কার করার সময় সবগুলো নাটবল্টু চেক করে দেখুন। নাটবল্টু ঢিলে থাকলে, শক্ত করে নিন। চাকার হাওয়ার প্রেশার নিয়মিত চেক করুন। কম বা বেশি থাকলে হাওয়া সমন্বয় করে নিন।
জেনে রাখুন
১. মোটরবাইক নিয়মিত সার্ভিস করানো উচিত।
২. গ্রেড অনুযায়ী নিয়মিত ইঞ্জিন অয়েল পরিবর্তন করতে হবে।
৩. ইয়ার ফিল্টার নিয়মিত পরিবর্তন করা উচিত।
৪. সম্ভব হলে প্রতিদিন সকালে যন্ত্রাংশগুলো চেক করুন।
৫. ধুলাবালি বেশি পড়ে বাইকের এমন অংশগুলো নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে।
৬. মোটরবাইকের চেইনে গ্রিজ ব্যবহার করবেন না। গ্রেড অনুযায়ী চেইন অয়েল ব্যবহার করুন।

কমেন্ট করুন

...

সাম্প্রতিক মন্তব্য

Top